পৌর মেয়র আব্দুল কাদের সেখের বিরুদ্ধে দূর্নীতির অভিযোগ 

ইসলামপুর পৌরসভার মেয়র আব্দুল কাদের সেখ

ইসলামপুর পৌরসভার মেয়র আব্দুল কাদের সেখ

মেয়রের অপসারণ চায় কাউন্সিলররা

জামালপুরের ইসলামপুর পৌরসভার মেয়র আব্দুল কাদের সেখের বিরুদ্ধে দূর্নীতি ও স্বেচ্ছাচারিতার অভিযোগ পাওয়া গেছে। দুর্নীতি ও স্বেচ্ছাচারিতার অভিযোগে গত ২২ অক্টোবর থেকে  পৌরসভার ১১কাউন্সিলর  কর্মবিরতি পালন করছেন।

জানা গেছে, মেয়রের দূর্নীতি এবং স্বেচ্ছারিতায় অতিষ্ঠ হয়ে মেয়রের অপসারণ চেয়ে পৌরসভার ১১ কাউন্সিলর একজোট হয়ে গত ১৭ নভেম্বর  লিখিত অভিযোগপত্র জমা দিয়েছেন ময়মনসিংহ বিভাগীয় কমিশনারের দপ্তরে। 

প্যানেল মেয়র-১ দেলোয়ার হোসেন লেবু প্রজন্মকন্ঠকে বলেন, মেয়র আব্দুল কাদের সেখ দূর্নীতি এবং স্বেচ্ছাচারিতায় লিপ্ত, পৌরসভার কোন কাজের সাথে কাউন্সিলরদের সম্পৃক্ত করেনা। নিয়ম মতো মিটিং ডাকেনা।

তিনি বলেন,পৌরসভার দুটি ঢালাই সড়কে একটাও রড ব্যবহার না করে বিল উঠিয়ে নিয়েছে। বিভাগীয় কমিশনার বরাবর পাঠানো অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, দুটি সড়ক বাতি  প্রকল্পের একটিতে নিম্নমানের মালামাল দিয়ে কাজ করে বিল উঠিয়ে নিয়েছে। 

কাউন্সিলর ফজলুল হক অভিযোগ করে বলেন, গত ঈদে গরীব মানুষের মাঝে বিতরণের  ভিজিএফ চাউল উঠিয়ে অর্ধেক চাউল বিক্রি করে দেয়। 

জানা গেছে, মেয়র কাদের এর বিরুদ্ধে বাংলাদেশ জুট কর্পোরেশনের জমি অবৈধ দলখ করে স্থাপনা নির্মাণ সংক্রান্ত অভিযোগে তাকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছিল স্হানীয় সরকার বিভাগ। এছাড়া পৌরসভার কার্যক্রমে অনিয়মের অভিযোগে ইতিপূর্বে কেন তাকে বরখাস্ত করা হবে না জানতে চেয়ে কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছিল স্হানীয় সরকার বিভাগ। এসংক্রান্ত চিঠিও কালবেলার হাতে এসেছে।

দূর্নীতি এবং স্বেচ্ছাচারিতার বিষয়ে জানতে চেয়ে ফোন করলে মেয়র কাদের সেখ প্রজন্মকণ্ঠকে বলেন, আপাতত কোন মন্তব্য করবো না। 

এসব বিষয়ে জানতে চেয়ে ফোন করলে স্হানীয় সংসদ সদস্য ধর্ম প্রতিমন্ত্রী ফরিদুল হক খান দুলাল জানান, বিস্তারিত না জেনে কোন মন্তব্য করতে পারছিনা কারণ তিনি দলের পদে আছেন, দলীয় প্রতীকে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। 

পাঠকের মন্তব্য