ব্যাংককে চিকিৎসা শেষে রওশন দেশে ফিরছেন আজ

(জাপা) প্রধান পৃষ্ঠপোষক রওশন এরশাদ

(জাপা) প্রধান পৃষ্ঠপোষক রওশন এরশাদ

মাঝখানে কয়েক দিন বাদ দিয়ে টানা এক বছরেরও বেশি সময় ব্যাংককের বামরুনগ্রাদ হাসপাতালে চিকিৎসা শেষে জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা ও জাতীয় পার্টির (জাপা) প্রধান পৃষ্ঠপোষক রওশন এরশাদ আজ রবিবার দেশে ফিরছেন। দলে চলমান বিবাদের মধ্যে দুপুর সোয়া ১২টার দিকে ঢাকা হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে নেমে তিনি সরাসরি যাবেন গুলশানের ওয়েস্টিন হোটেলে। সেখানে কয়েক দিন থাকার পর গুলশানে নিজ বাসায় উঠবেন। এর আগে জুনের শেষদিকে কয়েক দিনের জন্য দেশে ফিরেও ওয়েস্টিনেই ছিলেন রওশন।

রওশন এরশাদকে স্বাগত জানাতে তার অনুসারীরা বিমানবন্দরে উপস্থিত থাকবেন। তবে জাপার সংসদ সদস্য ও প্রেসিডিয়াম সদস্যসহ দলটির নেতাকর্মীদের কেউ বিমানবন্দরে যাচ্ছেন না। 

জাপা মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নু বলেন, ‘উনি যে দেশে আসছেন, আমরা কেউ জানিও না। আমাদের ওনার পক্ষ থেকে কিছু জানানোও হয়নি। আমরা লোকমুখে তার আসার কথা শুনেছি। যেহেতু দলের কেউ কিছু জানেন না, তাই বিমানবন্দরেও যাবেন না।’

দেশে ফিরে ওয়েস্টিন হোটেলে অবস্থানের কারণ সম্পর্কে তার মুখপাত্র কাজী মামুনুর রশীদ জানান, রওশন এরশাদের গুলশানের বাসা দীর্ঘদিন অব্যবহৃত থাকার কারণে সেখানে বর্তমানে বসবাসের উপযুক্ত পরিবেশ নেই। বাসা পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করা হচ্ছে। কয়েক দিন হোটেলে থাকার পর তিনি বাসায় ফিরবেন। ব্যাংককে চিকিৎসাধীন রওশন এরশাদ হঠাৎ গত ৩০ সেপ্টেম্বর এক চিঠির মাধ্যমে জাপার দশম জাতীয় কাউন্সিল ডাকেন।

গতকাল ২৬ নভেম্বর এই কাউন্সিল হওয়ার কথা ছিল। পর দিনই (১ অক্টোবর) ‘দীর্ঘদিন অসুস্থ থাকায় সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা হিসেবে রওশন এরশাদ সঠিকভাবে দায়িত্ব পালন করতে পারছেন না’- এমন কারণ দেখিয়ে তার পরিবর্তে জাপা চেয়ারম্যান জি এম কাদেরকে বিরোধীদলীয় নেতা করার জন্য সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীকে চিঠি দেয় দলটির পার্লামেন্টারি পার্টি।

এনিয়ে জাপায় বিবাদ দেখা দেয়। এ অবস্থায় জি এম কাদেরকে ‘সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা’ হিসেবে স্পিকার স্বীকৃতি দিয়ে গেজেট প্রকাশ না করা পর্যন্ত ৩১ অক্টোবর থেকে সংসদ বর্জনের ঘোষণা দেয় দলটির পার্লামেন্টারি পার্টি। আগের দিন রাতে এই ঘোষণা দিলেও ‘স্পিকারের আশ্বাসে’ পরদিনই জি এম কাদেরের নেতৃত্বে সংসদে ফিরেন জাপার এমপিরা। অন্যদিকে, আগের দিন রাতে রওশন এরশাদও তার ডাকা কাউন্সিল স্থগিত করেন।

এদিকে, রওশন এরশাদের অনুসারীদের পক্ষ থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, বিমানবন্দরে উপস্থিত অনুসারীদের উদ্দেশ্যে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখবেন রওশন।

এসময় তিনি রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে তার পছন্দের প্রার্থীর নাম ঘোষণা করবেন। এছাড়া তাকে ঘিরে জাপায় সৃষ্ট বিবাদের বিষয়েও তিনি কথা বলতে পারেন।

উল্লেখ্য, জাপার পক্ষ থেকে ইতিমধ্যে রংপুর সিটি নির্বাচনে বর্তমান মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফাকে প্রার্থী ঘোষণা করা হয়েছে। তবে রওশনের অনুসারীরা মোস্তফার পরিবর্তে আরেক জনকে প্রার্থী করার চেষ্টা করছেন।

পাঠকের মন্তব্য