ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ইতিহাস সৃষ্টি

'প্রথমবার টি-টোয়েন্টি জিতলো বাংলাদেশ'

প্রথম টি-টোয়েন্টিতে সংক্ষিপ্ত স্কোর 

প্রথম টি-টোয়েন্টিতে সংক্ষিপ্ত স্কোর 

ব্যাটে-বলে অলরাউন্ড নৈপুণ্য দেখিয়ে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথমবার টি-টোয়েন্টি জিতলো বাংলাদেশ। প্রতিপক্ষকে ১৫৬ রানে আটকে দেওয়ার পর নাজমুল হোসেন শান্তর ঝড়ো ইনিংসে জয়ের ভিত গড়ে তারা। এরপর সাকিব আল হাসানের ব্যাটে ১২ বল হাতে রেখে ৬ উইকেটের দাপুটে জয় পায় স্বাগতিকরা। গত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের চ্যাম্পিয়নদের হারিয়ে এই জয় অবিস্মরণীয় করে রাখলো বাংলাদেশ। ৪ উইকেট হারিয়ে ১৫৮ রান করে তারা।

১৮তম ওভারের শেষ বলে ক্রিস জর্ডানকে চার মেরে দলকে জেতান সাকিব। ২৪ বলে ৬ চারে ৩৪ রানে অপরাজিত ছিলেন তিনি। অন্য প্রান্তে আফিফ অপরাজিত ছিলেন ১৫ রানে।

প্রথম টি-টোয়েন্টিতে সংক্ষিপ্ত স্কোর 

ইংল্যান্ড ২০ ওভারে ১৫৬/৬।
বাংলাদেশ ১৭.৫ ওভারে ১৫৮/৪
ফল : বাংলাদেশ ৬ উইকেটে জয়ী।

রনি তালুকদারের ছোটখাটো ঝড়ে দারুণ শুরু হয় বাংলাদেশের। যদিও তিনি ও আরেক ওপেনার লিটন দাস বড় ইনিংস খেলতে পারেননি। শান্ত প্রথম বলেই এলবিডব্লিউ আউট হয়েছিলেন, রিভিউ নিয়ে বেঁচে যান। ফিরে পাওয়া জীবনকে কাজে লাগিয়ে বাংলাদেশকে শক্ত অবস্থানে নেন তিনি। ২৭ বলে করেন হাফ সেঞ্চুরি। এরপর ইনিংস বড় করতে পারেননি। তবে দলকে নিরাপদ স্থানে রাখেন। সাকিবের ব্যাটে পা হড়কায়নি বাংলাদেশ। জিতিয়ে মাঠ ছাড়েন অধিনায়ক।

চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে বৃহস্পতিবার (৯ মার্চ) ইংল্যান্ডের দেওয়া ১৫৭ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শুরু থেকেই মারমুখী ভঙ্গিতে খেলতে থাকে বাংলাদেশ দল। শুরুতেই রান তাড়ায় রনি তালুকদার ও লিটন দাসের ইতিবাচক শুরুই পথ দেখায় বাংলাদেশকে। এরপর নাজমুল হোসেনের ঝোড়ো ফিফটি, তৌহিদ হৃদয়ের সঙ্গে তাঁর ঝোড়ো জুটি ইংল্যান্ডকে প্রায় লড়াই থেকে ছিটকে দেয়।

টাইগারদের হয়ে সর্বোচ্চ ৫১ রান করেন নাজমুল হোসেন শান্ত। এছাড়া সাকিব অপরাজিত থাকেন ৩৪ রানে।

   


পাঠকের মন্তব্য