মোরেলগঞ্জের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে তদন্ত সম্পন্ন

 প্রধান শিক্ষক বেবী দেবনাথ

প্রধান শিক্ষক বেবী দেবনাথ

মোরেলগঞ্জ (বাগেরহাট) প্রতিনিধি : বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জ উপজেলার একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে নানা অনিয়মের অভিযোগের বিষয়টির তদন্ত সম্পন্ন হয়েছে।

জানা গেছে, উপজেলার রামচন্দ্রপুর ইউনিয়নের ৩৫ নং এন কে. রামচন্দ্রপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বেবী দেবনাথের বিরুদ্ধে ক্ষমতার অপব্যবহার, পরিচালনা পরিষদকে অবমুল্যায়ণ, অভিভাবকদের সাথে অসদাচরণসহ নানা বিধ অনিয়মের বিষয় সরকারের বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ করেন শিক্ষার্থী’র অভিভাবকগণ। উক্ত অভিযোগের প্রেক্ষিতে খুলনার রুপসা উপজেলা শিক্ষা অফিসার মো. আমিনুল ইসলামকে তদন্তকারী কর্মকর্তা নিয়োগ করেন খুলনা বিভাগীয় শিক্ষা অফিসার।

তদন্তকারী কর্মকর্তা রুপসা উপজেলা শিক্ষা অফিসার মো. আমিনুল ইসলাম সোমবার দুপুরের দিকে সরজমিনে ওই বিদ্যালয়ে উপস্থিত হয়ে অভিযোগের বিষয়টি তদন্ত করেন। তদন্তকালে তিনি অভিযোগকারীদের কাছ থেকে লিখিত বক্তব্য গ্রহন করেন। 

এ সময় প্রধান শিক্ষক বেবী দেবনাথের বিরুদ্ধে আরো ৭ জন অভিভাবক লিখিত অভিযোগ দাখিল করেন। 

স্থানীয় অভিভাবকরা জানান, বেবী দেবদনাথ ও সহকারী শিক্ষক অনিমেষ দেবনাথ উভয়ে ভাইবোন হওয়ায় এরা যা ইচ্ছা তাই করেন। তারা আরো অভিযোগ করেন যে, সহকারী শিক্ষক অনিমেষ দেবনাথ একজন মাদকসেবী। তাদের দু’ভাই বোনের অসৎ আচারণে অনেক শিক্ষার্থী এ স্কুল ছেড়ে চলে গেছে। 

এ ব্যপারে স্কুল পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি মো. শাহদাত হোসেনের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি মষনি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের একজন সহকারী শিক্ষক। ক্যাচমেন্ট এলাকায় বিএ পাস অভিভাবক না থাকায় তাকে সভাপতি করা হয়েছে। প্রধান শিক্ষক বেবী দেবনাথ তাকে সবক্ষেত্রে অবমুল্যায়ণ করে থাকেন।

স্কুলের প্রধান শিক্ষক বেবী দেবনাথ বলেন, তিনি এ স্কুলে ১৭ বছর ধরে চাকুরী করেন। তিনি সভাপতি এবং শিক্ষার্থী অভিভাবকদের সাথে কোন অসাধ আচারণ করেননি । একটি মহল তার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে হয়রানী করছে।

পাঠকের মন্তব্য