A PHP Error was encountered

Severity: 8192

Message: Return type of CI_Session_files_driver::open($save_path, $name) should either be compatible with SessionHandlerInterface::open(string $path, string $name): bool, or the #[\ReturnTypeWillChange] attribute should be used to temporarily suppress the notice

Filename: drivers/Session_files_driver.php

Line Number: 132

Backtrace:

File: /home/projonmo/public_html/pro_app079/controllers/PK_projonmo.php
Line: 13
Function: __construct

File: /home/projonmo/public_html/index.php
Line: 316
Function: require_once

A PHP Error was encountered

Severity: 8192

Message: Return type of CI_Session_files_driver::close() should either be compatible with SessionHandlerInterface::close(): bool, or the #[\ReturnTypeWillChange] attribute should be used to temporarily suppress the notice

Filename: drivers/Session_files_driver.php

Line Number: 290

Backtrace:

File: /home/projonmo/public_html/pro_app079/controllers/PK_projonmo.php
Line: 13
Function: __construct

File: /home/projonmo/public_html/index.php
Line: 316
Function: require_once

A PHP Error was encountered

Severity: 8192

Message: Return type of CI_Session_files_driver::read($session_id) should either be compatible with SessionHandlerInterface::read(string $id): string|false, or the #[\ReturnTypeWillChange] attribute should be used to temporarily suppress the notice

Filename: drivers/Session_files_driver.php

Line Number: 164

Backtrace:

File: /home/projonmo/public_html/pro_app079/controllers/PK_projonmo.php
Line: 13
Function: __construct

File: /home/projonmo/public_html/index.php
Line: 316
Function: require_once

A PHP Error was encountered

Severity: 8192

Message: Return type of CI_Session_files_driver::write($session_id, $session_data) should either be compatible with SessionHandlerInterface::write(string $id, string $data): bool, or the #[\ReturnTypeWillChange] attribute should be used to temporarily suppress the notice

Filename: drivers/Session_files_driver.php

Line Number: 233

Backtrace:

File: /home/projonmo/public_html/pro_app079/controllers/PK_projonmo.php
Line: 13
Function: __construct

File: /home/projonmo/public_html/index.php
Line: 316
Function: require_once

A PHP Error was encountered

Severity: 8192

Message: Return type of CI_Session_files_driver::destroy($session_id) should either be compatible with SessionHandlerInterface::destroy(string $id): bool, or the #[\ReturnTypeWillChange] attribute should be used to temporarily suppress the notice

Filename: drivers/Session_files_driver.php

Line Number: 313

Backtrace:

File: /home/projonmo/public_html/pro_app079/controllers/PK_projonmo.php
Line: 13
Function: __construct

File: /home/projonmo/public_html/index.php
Line: 316
Function: require_once

A PHP Error was encountered

Severity: 8192

Message: Return type of CI_Session_files_driver::gc($maxlifetime) should either be compatible with SessionHandlerInterface::gc(int $max_lifetime): int|false, or the #[\ReturnTypeWillChange] attribute should be used to temporarily suppress the notice

Filename: drivers/Session_files_driver.php

Line Number: 354

Backtrace:

File: /home/projonmo/public_html/pro_app079/controllers/PK_projonmo.php
Line: 13
Function: __construct

File: /home/projonmo/public_html/index.php
Line: 316
Function: require_once

A PHP Error was encountered

Severity: 8192

Message: filter_var(): Passing null to parameter #3 ($options) of type array|int is deprecated

Filename: core/Input.php

Line Number: 574

Backtrace:

File: /home/projonmo/public_html/pro_app079/models/PK_projonmo_model.php
Line: 140
Function: ip_address

File: /home/projonmo/public_html/pro_app079/controllers/PK_projonmo.php
Line: 689
Function: web_hit_count

File: /home/projonmo/public_html/index.php
Line: 316
Function: require_once

ধ্বসে পড়ছে ছাদ; গোলপাতার ঘরে শিক্ষার্থীদের পাঠদান

ধ্বসে পড়ছে ছাদ; গোলপাতার ঘরে শিক্ষার্থীদের পাঠদান

১১৯ নং স্মরণখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়

১১৯ নং স্মরণখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়

পাইকগাছার ১১৯ নং স্মরণখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছাদ ধ্বসে পড়ায় কোমলমতি শিক্ষার্থীদের নানা সংকট নিয়ে চলছে পাঠদান কার্যক্রম। পার্শ্ববর্তী  জৈনক ব্যক্তির জায়গায় জরাজীর্ণ গোলপাতার ঘর তৈরী করে শিক্ষার্থীরা সেখানে ক্লাস করছে। কিন্তু সেটি প্রধান সড়কের পাশে হওয়ায় কোমলমতি শিক্ষার্থীদের দুর্ঘটনার সম্ভবনা আছে বলে জানান, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কোহিনুর ইসলাম। অতি সত্ত্বর বিদ্যালয়ের ছাদ সংস্কারের জন্য উপজেলা শিক্ষা অফিসকে তাৎক্ষণিক এবং উপজেলা চেয়ারম্যান বরাবর লিখিত আবেদন করেছেন এবং বরাদ্দ পেয়েছি।

এদিকে, এত অল্প সময়ের মধ্যে স্কুলের ছাদ ধ্বসে পড়ার জন্য ওই সময়ে ভবন নির্মাণে দায়িত্বরত ঠিকাদার কর্তৃক নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহারের অভিযোগ করেন এলাকাবাসী।

সরেজমিনে যেয়ে দেখা যায়, উপজেলার পাইকগাছা-চাঁদখালী সড়কের পাশে অবস্থিত ১১৯নং স্মরণখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এ চিত্র। ১৯৯০ সালে বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠিত হলেও বিদ্যালয়টির ভবন নির্মিত হয় ২০০১ সালে। বর্তমানে ৮০ জন শিক্ষার্থী পাঠদান করছে। বিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবনের ছাদ ধ্বসে পড়ায় গোলপাতার ঘরেই ঝুঁকির মধ্যেই শিক্ষা কার্যক্রম চলছে। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কোহিনুর ইসলাম বলেন, গত ২০ আগষ্ট ২০২৩ তারিখে স্কুল চলাকালীন সময়ে হঠাৎ বিদ্যালয়ের কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর কক্ষের ছাদ ধ্বসে পড়ে। শ্রেণী শিক্ষক ঐ সময় শিক্ষার্থীদের ডেকে র্বোডের কাজ করাচ্ছিলেন ফলে অল্পের জন্য শিক্ষার্থীরা বড় ধরনের দূর্ঘটনার হাত থেকে রক্ষা পায়। বিষয়টি অভিভাবকেরা জানার পর সরেজমিনে এসে ধ্বসে পড়া অংশ দেখেন। খুবই উদ্বিগ্ন হয়ে ছেলে মেয়েদেরও বিদ্যালয়ে না পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেয়। এমতবস্থায়, আমরা শিক্ষক ও ম্যানেজিং কমিটি  মিলে তাৎক্ষণিক পরের দিন অস্থায়ীভাবে বিদ্যালয়ের পাশে গোল পাতার ছাউনি ও বাঁশের চটার বেড়া দিয়ে পাঠদান অব্যাহত রাখার ব্যবস্থা করি। কিন্ত অস্থায়ী ঘরটি প্রধান সড়কের পাশে হওয়ায় কোমলমতি শিক্ষার্থীদের দূর্ঘটনার ঝুঁকি আছে। আগামী বর্ষা মৌসুমের আগে বিদ্যালয়টি মেরামত করা না গেলে বর্ষায় শিক্ষার্থীদের পাঠদান বন্ধ হয়ে যেতে পারে। এ জন্য আমি উপজেলা চেয়ারম্যান বরাবর গত ৪ সেপ্টেম্বর ২০২৩ তারিখে বিদ্যালয়ের ছাদ সংস্কারের জন্য লিখিত আবেদন করেছি।

উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার বিদ্যুৎ রঞ্জন সাহা বলেন, দুর্ঘটনার সংবাদ শোনা মাত্রই আমি সরেজমিন যেয়ে বিষয়টি দেখেছি। উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়। বিদ্যালয়ের ছাদ সংস্কারের জন্য চাহিদা পত্র পাঠিয়েছিলাম। জরুরী ভিত্তিতে ভবন সংস্কারের জন্য ২ লাখ বরাদ্দ পেয়েছি। অনতিবিলম্বে ভবনটি সংস্কারের জন্য গত সপ্তাহে প্রধান শিক্ষককে নির্দেশনা দেয়া হয়।

উপজেলা চেয়ারম্যান মো. আনোয়ার ইকবাল মন্টু বলেন, আমি বিদ্যালয়টি পরিদর্শন করেছি। ছাদ ধ্বসে পড়ায় ছেলে মেয়েদের পড়া লেখায় একটু অসুবিধা হচ্ছে। আমি উপজেলায় মাসিক মিটিংয়ে বিদ্যালয়ের বিষয়টি উত্থাপন করেছিলাম খুব তাড়াতাড়ি বিদ্যালয়ের ছাদ সংস্কার হবে বলে তিনি আশাবাদী। এদিকে, ১১৯ নং স্মরণখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছাদ ধ্বসের ঘটনা খুবই উদ্বেগজনক। গা শিউরে ওঠার মত ঘটনা। বিশেষ করে ক্লাস চলাকালীন সময়ে ছাদ ধ্বসে পড়ে। অল্পের জন্য শিক্ষার্থীরা প্রাণ রক্ষা পায়। 

সুধী সমাজ ভবিষ্যতে প্রত্যেক বিদ্যালয়ের ভবন নির্মাণে ঠিকাদার কোন ধরনের অনিয়ম, নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহারের সুযোগ না পায় সেদিকে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কঠোর নজরদারির দাবি জানিয়েছেন। পাশাপাশি, নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে তদন্ত পূর্বক আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানান।

   


পাঠকের মন্তব্য