ওটিপি কোড নিয়ে ভাতার টাকা নেয়া গ্রেপ্তার তিন প্রতারক

রাণীশংকৈল থানায় অভিযোগ

রাণীশংকৈল থানায় অভিযোগ

ঠাকুরগাঁওয়ে ভাতার টাকা হাতিয়ে নিতে সক্রিয় হয়ে উঠেছে প্রতারক চক্র। নিজেদের সমাজসেবা কর্মকর্তা পরিচয়ে হাতিয়ে নিয়েছে হাজারো সুবিধাভোগীর বিকাশ—নগদ অ্যাকাউন্টের ওটিপি (ওয়ান টাইম পাসওয়ার্ড) নম্বর। 

এ বিষয়ে গত কয়েকদিন ধরে প্রতারণার শিকার সুবিধাভোগীরা জেলার রাণীশংকৈল থানায় অভিযোগ করেন। এরপরই অভিযানে নামে পুলিশ। অর্থ হাতিয়ে নেওয়ার ঘটনায় জড়িত চক্রের তিন সদস্যকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। গত মঙ্গলবার গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ থানা এলাকায় এ অভিযান চালানো হয়। 

বৃহস্পতিবার ঠাকুরগাঁও জেলা পুলিশ সুপার উত্তম প্রসাদ পাঠক নিজ কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেনে এসব তথ্য জানান। 

পুলিশ সুপার বলেন, গত ১ জুন থেকে সরকার নতুন করে ৫ লাখ প্রতিবন্ধীসহ বিভিন্ন ভাতা—ভোগীদের বিকাশ—নগদের মাধ্যমে এক বছরের ভাতা ১০ হাজার ২০০ টাকা করে প্রদান করছে। অপরাধী চক্রটি কৌশলে এ তালিকা সংগ্রহ করে। এ জন্য অর্থের বিনিময়ে প্রতারকেরা প্রথমে প্রতিবন্ধী ভাতাসহ বিভিন্ন ভাতাভোগীদের তালিকা যে সকল সরকারি—বেসরকারি দপ্তরের সংরক্ষিত থাকে, সেসব প্রতিষ্ঠান থেকে তালিকাটি সংরক্ষণ করেন। এরপর প্রতারকরা নিজেদের সমাজসেবা অফিসার পরিচয় দিয়ে ব্রিলিয়ান্ট অ্যাপের মাধ্যমে প্রতিবন্ধী ভাতা—ভোগীদের ফোন করে ভাতা পাঠানোর নামে ওটিপি (ওয়ান টাইম পাসওয়ার্ড) জেনে নেয়। এভাবে প্রতারক চক্র টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। 

পুলিশ সুপার আরও বলেন, এ ঘটনায় অভিযোগ আসার পর তদন্তে নেমে এ চক্রের তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাঁরা হলেন গাইবান্ধার জেলার গোবিন্দগঞ্জ থানা এলাকার মো. আজল হক (৫৭), কামরুল ইসলাম ওরফে হিরু (২৫), ও মো. শাকিল (২৩)। তাদের বিরুদ্ধে সংশ্নিষ্ট থানায় মামলা হয়েছে।  

এ সময় গ্রেপ্তারকৃতদের কাছ থেকে প্রতারণার কাজে ব্যবহৃত বিভিন্ন মোবাইল ফোন, সিম, বায়োমেট্রিক রেজিস্টে্রশনের কিট, অর্থ লেনদেনের রেকর্ডপত্র ও সিপিইউ জব্দ করা হয়। আজ বিকেলে ঠাকুরগাঁও বিচারিক আদালতের মাধ্যমে আসামিদের কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

   


পাঠকের মন্তব্য