ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

 প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা (ফাইল ফোটো)

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা (ফাইল ফোটো)

জাতির উদ্দেশে এক হৃদয়গ্রাহী বার্তায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সকল নাগরিককে ঈদ-উল-আযহার অন্তর্নিহিত ত্যাগের চেতনাকে গ্রহণ করার এবং দেশ ও জনগণের কল্যাণে আত্মনিয়োগ করার আহ্বান জানিয়েছেন। তার ভাষণটি আসে যখন সারা বাংলাদেশের মুসলমানরা ঈদ-উল-আযহা উদযাপনের জন্য প্রস্তুত হচ্ছ। এই ঈদ-উল-আযহা উদযাপন ইব্রাহীম (আ.)-এর ঈশ্বরের আনুগত্যের কাজ হিসেবে তার পুত্রকে বলিদানের ইচ্ছুকতাকে চিহ্নিত করে এবং কোরবানির আচারের মাধ্যমে পালন করা হয়, বা কোরবানিমূলক জবাই করা হয়।

এক ভিডিও বার্তায়, "প্রিয় দেশবাসী, আসসালামু আলাইকুম," প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উষ্ণতা ও ঐক্যের সূচনা করেন। তারপর তিনি বলেন, বছরের পর বছর আবারও আমাদের জীবনে ফিরে এসেছে পবিত্র ঈদুল আজহা। আপনাদের সবাইকে ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা। ঈদ মোবারক'' 

প্রধানমন্ত্রী উত্সবের ঐতিহ্যগত রীতিনীতির বাইরে গিয়ে এর গভীর অর্থের ওপর জোর দেন। তিনি বলেন, 'ঈদ-উল-আযহার শিক্ষা গ্রহণ করে ত্যাগের মহিমায় উজ্জীবিত হয়ে দেশ ও জনগণের কল্যাণে কাজ করি।' "বিশ্বব্যাপী চ্যালেঞ্জ এবং জাতীয় আকাঙ্ক্ষার সময়ে, আমাদের সম্মিলিত প্রচেষ্টা এবং ত্যাগ একটি সমৃদ্ধ ও সম্প্রীতিপূর্ণ বাংলাদেশ গড়ার জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।"

ঐক্য ও সাম্প্রদায়িক কল্যাণের তাৎপর্য তুলে ধরে তিনি আরও বলেন, "পবিত্র ঈদুল আজহা আমাদের জীবনে বয়ে আনুক অনন্ত আনন্দ, সুখ, শান্তি ও স্বস্তি। সবাই ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন, নিরাপদে থাকুন। ঈদ মোবারক। "

প্রধানমন্ত্রীর এই বার্তাটি এমন এক সময়ে এসেছে যখন অন্যান্য অনেক দেশের মতো বাংলাদেশও বিভিন্ন সামাজিক ও অর্থনৈতিক চ্যালেঞ্জের মধ্য দিয়ে চলাচল করছে। সংহতি এবং ত্যাগের জন্য তার আহ্বান ঈদ-উল-আযহার মূল মূল্যবোধের সাথে অনুরণিত, নাগরিকদের ব্যক্তিগত লাভের বাইরে দেখতে এবং বৃহত্তর ভালোতে অবদান রাখতে উত্সাহিত করে।

জাতি যখন উৎসবের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে, প্রধানমন্ত্রী হাসিনার কথাগুলো ঐক্যের শক্তি এবং সম্মিলিত দায়িত্বের গুরুত্বের অনুস্মারক হিসেবে কাজ করে। তার বার্তার লক্ষ্য হল মানুষের মধ্যে উদ্দেশ্য এবং প্রতিশ্রুতির বোধ জাগানো, এমন পরিবেশ গড়ে তোলা যেখানে ঈদ-উল-আযহার চেতনা কেবল উদযাপনের বাইরে, জাতীয় উন্নয়নের জন্য অর্থবহ কর্মকাণ্ডে পরিণত হয়।

প্রধানমন্ত্রী আশাবাদ ও যত্নের একটি নোট দিয়ে তার ভাষণ শেষ করেন, যা জাতির মঙ্গলের প্রতি তার চলমান অঙ্গীকার প্রতিফলিত করে। "সবাই ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন, নিরাপদে থাকুন। ঈদ মোবারক।"

বাংলাদেশ যখন এই সম্মানিত উৎসবে পা রাখছে, প্রধানমন্ত্রীর আহ্বান সেই মূল্যবোধের একটি সময়োপযোগী অনুস্মারক যা জাতিকে একত্রে আবদ্ধ করে, একটি উজ্জ্বল, আরও অন্তর্ভুক্তিমূলক ভবিষ্যতের জন্য সকলকে অবদান রাখার আহ্বান জানায়।

   


পাঠকের মন্তব্য