ভালুকায় ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ

ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মো. হোজ্জাতুল ইসলাম

ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মো. হোজ্জাতুল ইসলাম

ময়মনসিংহের ভালুকায় শামলা শাহ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মো. হোজ্জাতুল ইসলামের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অনিয়ম ও দূর্ণীতির অভিযোগ উঠেছে।ওই স্কুলের দাতা ও প্রতিষ্ঠাতার বড় ছেলে অবসরপ্রাপ্ত সহকারী শিক্ষক মো. শাহজাহান মিয়া জেলা প্রসাশকসহ বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, উপজেলার ধীতপুর ইউনিয়নের শামলা শাহ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মো. হোজ্জাতুল ইসলাম ও বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মো. এমরান মিয়া গোপনে প্রধান ও সহকারী প্রধান শিক্ষক নিয়োগের প্রক্রিয়া করে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। যা নিয়ে এলাকায় তুলপার শুরু হলে বিষয়টি জানতে পেয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে অবগত করলে তিনি ওই নিয়োগ প্রক্রিয়া বন্ধ করেন। কিছুদিন পর পুনরায় তারা ৪টি পদে পত্রিকায় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে বিভিন্ন লোকদের কাছ থেকে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নেয়। এ বিষয়ে জানাজানির পর গত ১১ মার্চ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়। 

অভিযোগ সূত্রে আরও জানা যায়, বিদ্যালয়ের বিভিন্ন কার্যক্রম সঠিক সময় বা সঠিক নিয়মে না করে গড়িমসি করছে বিদ্যালয়ের বর্তমান ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মো. হোজ্জাতুল ইসলাম। বিধিমোতাবেক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটি গঠন না করে গড়িমসি করে সময় অতিবাহিত করেছে।

অভিযুক্ত ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মো. হোজ্জাতুল ইসলামের সাথে যোগাযোগ করা হলে তার বিরুদ্ধে অনিয়ম ও দূর্ণীতির বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি কোন মন্তব্য করতে জারি নয় বলে ফোন কেটে দেন। পরে একাধিকবার ফোন দিলেও তিনি ফোন ধরেননি। 

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মো. ঝিল্লুর রহমান আনম জানান, 'এ বিষয়ে সরেজমিনে তদন্ত করতে আমরা খুব তারাতারিই স্কুল পরিদর্শনে যাবো। অভিযোগ প্রমানিত হলে তার বিরুদ্ধে ব্যাবস্থা নেওয়া হবে।'

   


পাঠকের মন্তব্য