প্রযোজক শ্রীকান্ত মোহতা গ্রেফতার

চলচ্চিত্র নির্মাতা সংস্থা ‘শ্রী ভেঙ্কটেশ ফিল্মস’র প্রতিষ্ঠাতা ও প্রযোজক শ্রীকান্ত মোহতাকে গ্রেফতার করেছে ভারতের কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা সিবিআই। বৃহস্পতিবার দুপুরে দক্ষিণ কলকাতার কসবার অফিসে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করা হয়। 

তার বিরুদ্ধে ভুঁইফোড় অর্থলগ্নীকারী সংস্থা ‘রোজভ্যালি’এর সাথে বেআইনি আর্থিক লেনদেনে জড়িত থাকা, প্রতারণা করা, রোজভ্যালির কর্ণধারকে হুমকি দেওয়া, তদন্তে সহায়তা না করা-সহ একাধিক অভিযোগ রয়েছে। 

সিবিআই সূত্রে খবর, রোজভ্যালির সাথে ২০১০ সালে শ্রীকান্তের শ্রী ভেঙ্কটেশ ফিল্মস-এর একটি চুক্তি হয়। সেই চুক্তি অনুযায়ী ওই প্রযোজনা সংস্থা রোজভ্যালির কাছ থেকে ছবি নির্মাণের জন্য ২৫ কোটি নেয়। কিন্তু চুক্তি অনুযায়ী প্রযোজক সংস্থাটি কাজ করেনি বলে অভিযোগ। 
এ প্রযোজকের বিরুদ্ধে আর্থিক অনিয়ম ওঠার পরই সিবিআই-এর তরফে একাধিকবার নোটিশ পাঠানো হয় কিন্তু বারেবারেই শ্রীকান্ত হাজিরা এড়িয়ে যান। এরপর জিজ্ঞাসাবাদ করতেই বৃহস্পতিবার দুপুরের দিকে দক্ষিণ কলকাতার কসবায় অ্যাক্রোপলিশ শপিং মলে শ্রীকান্তের অফিসে আচমকা অভিযান চালায় সিবিআই। এসময় সিবিআই খতিয়ে দেখে বিভিন্ন নথি। পাশাপাশি তাকে টানা দুই ঘণ্টার বেশি সময় ধরে জিজ্ঞাসাবাদও করা হয়। কিন্তু জেরায় বহু প্রশ্নের কোনো সদুত্তর দিতে পারেননি শ্রীকান্ত।

আর্থিক লেনদেন সম্পর্কিত বহু নথিও এদিন দেখাতে পারেননি বলে অভিযোগ। তাছাড়া তার বিরুদ্ধে তদন্তে সহযোগিতা না করার অভিযোগও ছিল। এরপরই তাকে আটক করে সল্টলেকের সিজিও কমপ্লেক্স-সিবিআই এর আঞ্চলিক কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়া হয়। এরপর সেখানেও চলে ম্যারাথন জেরা। পরে বিকালের দিকে শ্রীকান্ত মোহতাকে গ্রেফতার করে সিবিআই। রাজ্যে মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির শ্রীকান্ত মোহতার ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক রয়েছে। 
 
শ্রীকান্তের বিরুদ্ধে শুধু ‘রোজভ্যালি’ নয়, ‘সারদা’ নামে আরেকটি অর্থলগ্নিকারী সংস্থার সাথেও শ্রীকান্তের প্রযোজনা সংস্থার বেআইনি আর্থিক লেনদেন ঘটেছিল বলে অভিযোগ। তদন্তে নেমে সিবিআই কর্মকর্তারা সেকথাও জানতে পারেন। আগামীকাল ভুবনেশ্বরে সিবিআই আদালতে শ্রীকান্তকে তোলা হতে পারে।

পাঠকের মন্তব্য