জঙ্গিদের অর্থে যোগান বন্ধ করতে পাকিস্তানকে হুঁশিয়ারি 

পুলওয়ামার আত্মঘাতী জঙ্গি হামলার পর কূটনৈতিক স্তরে পাকিস্তানকে কোণঠাসা করার প্রক্রিয়ায় অনেকদূর সফল হয়েছে ভারত৷ বিশ্বের তাবড় তাবড় শক্তিধর দেশ ভারতের পাশে থেকে পাকিস্তানকে জঙ্গিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন৷ কড়া কথা শুনিয়েছে আমেরিকাও৷

রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের প্রতিশ্রুতির কথা পাকিস্তানকে মনে করিয়ে দিল ট্রাম্প প্রশাসন৷ কড়া ভাষায় জানিয়ে দিল জঙ্গিদের আশ্রয় দেওয়া বন্ধ করে নিরাপত্তা পরিষদকে দেওয়া প্রতিশ্রুতি পালন করুক পাকিস্তান৷ একই সঙ্গে দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ায় শান্তি ও স্থিতাবস্থা বজায় রাখতে দুই দেশকে সামরিক কার্যকলাপে এখানেই দাঁড়ি টানতে বলেছে আমেরিকা৷

পুলওয়ামায় সিআরপিএফ কনভয়ে হামলার নেপথ্যে রয়েছে জইশ-ই-মহম্মদ জঙ্গি সংগঠন৷ বুধবার পাকিস্তানের হাতে এসংক্রান্ত একগুচ্ছ দলিল ধরিয়ে দেয় ভারত৷ তার কিছুক্ষণের মধ্যে মুখ খোলে আমেরিকা৷ জানায়, ১৪ ফেব্রুয়ারি পুলওয়ামার হামলা এই অঞ্চলের নিরাপত্তার উপর বড় আঘাত৷ ট্রাম্প প্রশাসনের মুখপাত্র রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের পাকিস্তানের দেওয়া প্রতিশ্রুতির কথা মনে করিয়ে দেন৷ জানান, জঙ্গিদের আশ্রয় দেওয়া ও তাদের অর্থের যোগান বন্ধ করতে যথাযথ ব্যবস্থা নিতে হবে পাকিস্তানকে৷

তবে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় শান্তি ও স্থিতাবস্থা বজায় রাখতে দুই দেশকে আর উত্তেজনা না বাড়ানোর পরামর্শ দিয়েছে আমেরিকা৷ ট্রাম্প প্রশাসন জানায়, সামরিক কার্যকলাপ পরিস্থিতি খারাপের দিকে নিয়ে যাবে৷ তাই সামরিক কার্যকলাপ বন্ধ রেখে এই অঞ্চলের শান্তি ও স্থিতাবস্থা কী করে ফিরিয়ে আনা যেতে পারে সেই নিয়ে চিন্তা করুক দুই দেশ৷

এদিকে কূটনৈতিক স্তরে ভারত বড় সাফল্য লাভ করেছে৷ আন্তর্জাতিক স্তরে আরও কোনঠাসা করে দিয়েছে পাকিস্তানকে৷ কাশ্মীরের পুলওয়ামাতে সেনা কনভয়ে আত্মঘাতী হামলা চালানোর দায় স্বীকার করেছে পাকিস্তানের জঙ্গি সংগঠন জইশ-ই-মহম্মদ৷ এই জঙ্গি সংগঠনটির মাথা মাসুদ আজাহার এখনও রয়েছে পাকিস্তানে৷ এই মাসুদের বিশ্বের যে কোন প্রান্তে যাওয়ার উপর নিষেধাজ্ঞা এবং এবং সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করার আবেদন নিরাপত্তা পরিষদের ১৫ সদস্য দেশের কাছে রেখেছে আমেরিকা, ইংল্যান্ড এবং ফ্রান্স৷ এতেই বড় সাফল্য দেখছে ভারত৷ কারণ মাসুদ আজহারকে নিষিদ্ধ করার দাবি ভারতের দীর্ঘদিনের৷

পাঠকের মন্তব্য