পাকিস্তানের হেভি শেলিংয়ে ভারতীয় সেনার আহত ৬ 

একদিকে যখন শান্তির বার্তা দিচ্ছে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। অন্যদিকে তখন লাগাতার হেভি শেলিং পাকিস্তান সেনার। রাজৌরি, পুঞ্চ সহ সীমান্ত সংলগ্ন ছটি সেক্টরে হেভি ফায়ারিং চালিয়ে যাচ্ছে পাকিস্তান সেনা। মর্টার সহ অত্যাধুনিক সমরাস্ত্র ব্যবহার করছে পাকিস্তান সেনা। সীমান্তের এপারে থাকা ভারতীয় সেনা ছাউনি সহ সাধারণ গ্রামবাসীদের টার্গেট করছে পাকিস্তান সেনা।

আর এই ঘটনায় এখন পর্যন্ত একজন সাধারন মহিলার মৃত্যু হয়েছে বলে জানানো হয়েছে ভারতীয় সেনার তরফে। শুধু তাই নয়, হেভি শেলিংয়ে ভারতীয় সেনার ছয় জওয়ানও গুরুতর আহত হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। যদিও পাকিস্তানকে কড়া ভাষায় প্রত্যুত্তর দিচ্ছে ভারতীয় সেনা।
 
ইতিমধ্যে পাকিস্তান সেনার হেভি শেলিংয়ের হাত থেকে সাধারণ গ্রামবাসীকে বাঁচাতে নিরাপদ জায়গায় সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। শুধু তাই নয়, যুদ্ধকালীন তৎপরতায় তৈরি হচ্ছে বেশ কিছু বাংকার। সেখানে গ্রামবাসীদের থাকার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। খুব প্রয়োজনে বাড়ির বাইরে না আসার জন্যে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে সেনার তরফে। পাশাপাশি সমস্ত সীমান্তবর্তী এলাকায় স্কুল-কলেজ বন্ধ রাখা হয়েছে।

ভারতীয় বায়ুসেনার এয়ারস্ট্রাইকের পর থেকে সীমান্ত শেলিংয়ের পরিমাণ বাড়িয়েছে পাকিস্তান। লাগাতার সীমান্তের ৫৫টি সেক্টরে বিনা প্ররোচনাতে যুদ্ধবিরক্তি চুক্তি লঙ্ঘন করছে পাকিস্তান। যদিও ইতিমধ্যে ভারতীয় সেনাকেও পালটা জবাব দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। রীতিমত খোলা হাতে জবাব দিতে বলা হয়েছে। সেই মতো গত কয়েকদিন আগে পাকিস্তানের একাধিক সেনা ঘাঁটি গুঁড়িয়ে দেয় ভারতীয় সেনা। কিন্তু তারপর থেকে লাগাতার সংঘর্ষ বিরতি চুক্তি লঙ্ঘন করে আসছে পাকিস্তান সেনা।

পাঠকের মন্তব্য