না জানি মোস্তাফিজের ক্যারিয়ারটা ধ্বংস হয়ে যায় !

না জানি মোস্তাফিজের ক্যারিয়ারটা ধ্বংস হয়ে যায় !

না জানি মোস্তাফিজের ক্যারিয়ারটা ধ্বংস হয়ে যায় !

বাংলাদেশ ক্রিকেটাকাশে ধূমকেতুর মতো আবির্ভাব ঘটেছিল মোস্তাফিজুর রহমানের। ক্যারিয়ারের সূচনালগ্নে হইচই ফেলে দিয়েছিলেন ক্রিকেটবিশ্বে। তবে ইনজুরির কবলে পড়ে বারবার চলে যান দলের বাইরে।

ভারতীয় জনপ্রিয় ধারাভাষ্যকার হার্শা ভোগলের মনে বিষয়টি ভীতির সঞ্চার করেছিল। তিনি শঙ্কায় ছিলেন না জানি মোস্তাফিজের ক্যারিয়ারটা ধ্বংস হয়ে যায়! তবে সব বাধা পেছনে ফেলে বিশ্বকাপের দলে ফিজের থাকাটা টাইগারদের জন্য ইতিবাচক হিসেবে দেখছেন হার্শা।

বিশ্বকাপ শুরুর ঠিক আগে গোড়ালির ইনজুরিতে পড়েন মোস্তাফিজ। ফলে আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজে তার খেলা নিয়ে সংশয় তৈরি হয়। ২০১৭ সালে আইপিএলে খেলতে গিয়ে ইনজুরি নিয়ে ফেরেন তিনি। তার ক্যারিয়ারে সবচেয়ে বড় ধাক্কা হয়ে আসে কাঁধের ইনজুরি। ইংলিশ কাউন্টি দল সাসেক্সের হয়ে ন্যাটওয়েস্ট টি-টোয়েন্টি ব্লাস্ট খেলতে গিয়ে ভয়ঙ্কর চোটের শিকার হন বাঁহাতি পেসার।

এ জন্য শল্যবিদের ছুরি-কাঁচির নিচে যেতে হয় মোস্তাফিজকে। প্রায় ছয় মাস নির্বাসন কাটিয়ে ২০১৭ সালের জানুয়ারিতে নিউজিল্যান্ড সিরিজ দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরেন তিনি। পরে আরও ছোট-বড় কয়েকটি ইনজুরির বিপক্ষে কঠিন পরীক্ষা দিতে হয় তাকে। এ সময়ে ছন্দ হারিয়ে নিজেকে খুঁজছেন কাটার মাস্টার।

হার্শা ভোগলে বলেন, মোস্তাফিজের ফিরে আসাটা বিশ্বকাপে বাংলাদেশের জন্য সবচেয়ে ইতিবাচক দিক। একপর্যায়ে আমার মনে ভীতি ধরিয়ে দিয়েছিল সে। ইনজুরি ও টি-টোয়েন্টি লিগে ব্যস্ত সূচির কারণে বাংলাদেশ তাকে হারিয়ে ফেলবে অথবা তার বলের গতি কমে যাবে এমন ভয় ছিল। তবে শেষ দুই বছরে ওর পারফরম্যান্স অসাধারণ। বিষয়টি আশা জাগানিয়া।

ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে বাংলাদেশ পেস আক্রমণের কর্ণধার মোস্তাফিজ। অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা তার ওপরেই সবচেয়ে বেশি আস্থা রাখছেন। সম্প্রতি দ্য ফিজের পারফরম্যান্সও সাহস জোগাচ্ছে টাইগার দলপতিকে।

আয়ারল্যান্ডের মাটিতে তিন ম্যাচে মাঠে নেমে ৬ উইকেট শিকার করেন মোস্তাফিজ। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ৪ উইকেট নিয়ে হন ম্যাচসেরা। এ ছাড়া ঘরোয়া লিগেও তার পারফরম্যান্স ছিল আশানুরূপ। সেই তাকেই বিশ্বমঞ্চে আগুনে রূপে দেখতে চান হার্শা।

পাঠকের মন্তব্য