ঢাবির শিক্ষার্থীদের প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে অনুদান প্রসঙ্গ

ঢাবির শিক্ষার্থীদের প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে অনুদান প্রসঙ্গ

ঢাবির শিক্ষার্থীদের প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে অনুদান প্রসঙ্গ

করোনা (কভিড-১৯) মোকাবেলায় পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে হলগুলোর জন্য বরাদ্দকৃত ৫৪ লক্ষ টাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে  অনুদান দেওয়া হবে। উক্ত টাকা পহেলা বৈশাখে হলের জন্য বরাদ্দ ছিল। কিন্তু দেশে করোনা ভাইরাস পরিস্থিতি মোকাবেলায় ডাকসু ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন থেকে এ উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। 

প্রতি বছর ১লা বৈশাখ উদযাপন ও বিশেষ খাবার বাবদ প্রতিটি হলের জন্য টাকা বরাদ্দ থাকে। কিন্তু এ বছর দেশে করোনা ভাইরাস মহামারী আকার ধারন করায় পহেলা বৈশাখের জন্য বরাদ্দকৃত অর্থ প্রধানমন্ত্রীর তহবিলে জমা দিতে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে অনুরোধ করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র স‌ংসদ (ডাকসু) ও হল ছাত্রসংসদের নেতৃবৃন্দ। সকল শিক্ষার্থীরা এতে সন্তোষ প্রকাশ করে। 

এ বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র স‌ংসদ (ডাকসু)-র সদস্য মাহমুদ হাসান বলেন, অতীতে দেশের যে কোনো প্রয়োজনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা এগিয়ে এসেছে। দেশে বর্তমানে এক ক্রান্তিকাল চলছে, এই দুঃসময়ে মানুষের পাশে দাঁড়ানোর দায়িত্ববোধ থেকেই আমরা এমন সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছি। এছাড়াও, তিনি সকল বিত্তবানদের মানুষের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানান। হাজী মুহম্মদ মুহসীন হলের আবাসিক শিক্ষার্থী রাফিউল ইসলাম প্রজন্মকন্ঠকে বলেন, আমরা ডাকসুকে অসংখ্য ধন্যবাদ জানাচ্ছি এমন একটি উদ্যোগ নেওয়ায়। আমাদের সবার উচিত যার যার অবস্থান থেকে অসহায় ও হত-দরিদ্রদের সহায়তা করা। 

করোনার ভয়াবহতার কারণে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় গত ১৬ই মার্চ থেকে ছুটি চলছে। এক‌ইসাথে সকল হলগুলোও ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। প্রথমে, ১৬ই মার্চ থেকে ৩১শে মার্চ পর্যন্ত ছুটি ঘোষণা করা হলেও পরে তা ১১ই এপ্রিল পর্যন্ত বৃদ্ধি করা হয়।

উল্লেখ্য যে, বিশ্বে সর্বপ্রথম গত বছরের ডিসেম্বরে চিনের উহানে করোনা ভাইরাস ধরা পড়ে এরপর তা বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়ে এবং ব্যাপক মানুষের প্রাণহানি ঘটে। বিশ্ব স্থাস্থ্য সংস্থার সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী ভাইরাসটি বিশ্বের ১৮০ টিরও বেশী দেশে ছড়িয়ে পড়েছে এবং ৭০,০০০ বেশি লোক কভিড-১৯ এ আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে। আইইডিসিআর এর সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী বুধবার দুপুর পর্যন্ত বাংলাদেশে কভিড-১৯ এ আক্রান্তর সংখ্যা ২১৮ জন ও মৃত্যু বরণ করেছেন ১৮ জন।

পাঠকের মন্তব্য