প্রাক-প্রাথমিক শিক্ষার গুণগত মান বৃদ্ধি প্রয়োজন : মিথিলা

প্রাক-প্রাথমিক শিক্ষার গুণগত মান বৃদ্ধি প্রয়োজন : মিথিলা

প্রাক-প্রাথমিক শিক্ষার গুণগত মান বৃদ্ধি প্রয়োজন : মিথিলা

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজ গবেষণা গ্রুপের নিয়মিত ওয়েবনারের (ওয়েব সেমিনার) ২৫তম পর্ব অনুষ্ঠিত হয়েছে। 'বাংলাদেশে প্রাথমিক শৈশব শিক্ষার প্রতিবন্ধকতা' শীর্ষক আলোচনায় আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ব্র্যাকের প্রাক-প্রাথমিক শৈশব শিক্ষা প্রোগ্রামের প্রধান এবং সুইজারল্যান্ডের জেনেভা বিশ্ববিদ্যালয়ের পিএইচডি গবেষক রাফিয়াত রশিদ মিথিলা। 

শুক্রবার (২৮আগস্ট) রাত নয়টায় অনুষ্ঠিত এই ওয়েবনারে প্রধান আলোচক হিসাবে অংশ নিয়ে রাফিয়াত রশিদ মিথিলা বলেন, বাংলাদেশ সরকারের সাথে সাথে দেশের উন্নয়ন সহযোগী সংগঠনগুলোও প্রাক-প্রাথমিক শিক্ষার উন্নয়নে বেশ ভালো কাজ করছে। আবার এটিও ঠিক শিশুদের শৈশব শিক্ষার উন্নয়নের ক্ষেত্রে নানাবিধ প্রতিবন্ধকতাও রয়েছে। এই প্রতিবন্ধকতা দূর করার জন্য দরকার সমন্বিত উদ্যোগ। বিশেষ করে সরকার ও উন্নয়ন সহযোগী সংগঠনগুলোকে এখাতের প্রতিবন্ধকতা দূর কারার জন্য একসাথে কাজ করতে হবে। এছাড়াও বাংলাদেশের শৈশব শিক্ষার বিকাশে সরকারের ১৪ ভিন্ন ভিন্ন মন্ত্রনালয় কাজ করে। এক্ষেত্রে তাদের মাঝে সমন্বয়হীনতার একটা বড় সমস্যা রয়ে গেছে।

 তিনি আরও বলেন, শিশুদের শিক্ষকদের প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণের বড় একটা অভাব রয়েছে। এজন্য ব্র্যাক অনেক কাজ করছে। আর যেহেতু প্রাথমিক শৈশব শিক্ষার ক্ষেত্রে সরকারের একটা বড় প্রভাব রয়েছে, সেহেতু সরকারি পর্যায়ে শিক্ষকদের প্রশিক্ষণ বৃদ্ধির ব্যবস্থা করতে হবে। একটা শিশু বেড়ে উঠার জন্য একটি বাড়ি বা একটি পাড়া নয় বরং একটা দেশ ও একটি জাতি দরকার।

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের লোক প্রশাসন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক কৃষ্ণ কুমার সাহার পরিচালনায় ওয়েবনারটিতে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ দেশ ও বিদেশের বিভিন্ন প্রান্তের সাংবাদিক, গবেষক, এনজিও কর্মী, শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা অংশ নেন।

উল্লেখ্য, মহামারি করোনা ভাইরাসের সংকটকালে সমসাময়িক বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনার মধ্য দিয়ে শিক্ষার্থীদের জ্ঞানচর্চা চলমান রাখার লক্ষ্যে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজ গবেষণা গ্রুপ নিয়মিতভাবে ওয়েবনারের আয়োজন করে আসছে।

পাঠকের মন্তব্য