ইংলিশদের করোনার হানা, মঈনের দেহে নতুন স্ট্রেইন

ইংলিশদের করোনার হানা, মঈনের দেহে নতুন স্ট্রেইন

ইংলিশদের করোনার হানা, মঈনের দেহে নতুন স্ট্রেইন

করোনা থেকে ক্রিকেট দলগুলোকে দূরে রাখতে আপ্রাণ চেষ্টা করছে আন্তর্জাতিক সিরিজের আয়োজক বোর্ডগুলো। তবুও ন্যূনতম ফাঁকফোকর পেলেই বায়োবাবলে হানা দিচ্ছে করোনা। বাংলাদেশ সফররত ক্যারিবীয় দলে করোনায় আক্রান্ত এক ক্রিকেটার শনাক্ত হওয়ার পর এবার শ্রীলঙ্কা সফররত ইংল্যান্ডের হোটেলে দুই কর্মীর দেহে করোনা ধরা পড়েছে।

চলমান গল টেস্টের জন্য ইংল্যান্ড টেস্ট দল এখন গলের একটি হোটেলে বায়োবাবলে রয়েছে। সেই হোটেলেরই দুই কর্মীর দেহে করোনা শনাক্ত হয়েছে, যারা খেলোয়াড়দের রান্নাবান্নার কাজে নিয়োজিত ছিলেন। করোনার লক্ষণ-উপসর্গ থাকায় সাবধানতাবশত তাদের নমুনা পরীক্ষা করা হয়।

ঐ দুই কর্মীকে ত্বরিত গতিতে আইসোলেশনে পাঠানো হয়েছে। তার কার কার সংস্পর্শে এসেছিলেন, তাদেরও শনাক্ত করে কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হবে। একই হোটেলে থাকলেও ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড জানিয়েছে, হোটেলে করোনা আক্রান্ত স্টাফ শনাক্তের খবরে তারা উদ্বিগ্ন নয়। হোটেলে নিজের কক্ষ ব্যতীত প্রায় সর্বত্রই খেলোয়াড়রা মাস্ক পরিধান করে চলাফেরা করছেন এবং শারীরিক দূরত্ব মেনে চলছেন বলে জানানো হয়েছে।

এদিকে শ্রীলঙ্কায় পা রেখে করোনা শনাক্ত হওয়া মঈন আলী আছেন পৃথক একটি হোটেলে আইসোলেশনে। তার দেহে শনাক্ত ভাইরাসটি ভীতি জাগানো নতুন স্ট্রেইন বা প্রজাতি বলে জানিয়েছে শ্রীলঙ্কা। নতুন স্ট্রেইনে আক্রান্ত হিসেবে এই প্রথম শ্রীলঙ্কায় কেউ শনাক্ত হলেন। বিষয়টি তাই ভাবিয়ে তুলেছে দ্বীপদেশটিকে। ইতোমধ্যে মঈনের আইসোলেশনের সময়সীমা বাড়ানো হয়েছে। এমনকি মঈনের সংস্পর্শে আসা ক্রিস ওকসকেও দলের বাইরে রেখে আইসোলেশন রাখা হয়েছে।

পাঠকের মন্তব্য