কুবির বাংলা বিভাগের সাবেক শিক্ষার্থীর মৃত্যু

কুবির বাংলা বিভাগের সাবেক শিক্ষার্থীর মৃত্যু

কুবির বাংলা বিভাগের সাবেক শিক্ষার্থীর মৃত্যু

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় (কুবি) বাংলা বিভাগের ২০১০-১১ সেশনের ৫ম ব্যাচের শিক্ষার্থী নাজনীন আহমেদ দুলালী ১৭ই জানুয়ারী রবিবার ভোর ০৩:৩০ মিনিটে অন্তঃসত্ত্বা অবস্থায় ঢাকা ল্যাব এইড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেছেন।

জানা যায়, নাজনীন আক্তার তার স্বামী এবং দুই ছেলে সন্তান নিয়ে ইতালিতে থাকতেন। গত বছরের ফেব্রুয়ারী মাসে দুই সন্তান ও স্বামীকে নিয়ে দেশে আসেন। বিগত বেশ কিছুদিন যাবৎ তিনি শারীরিক নানা অসুস্থতায় মধ্য দিয়ে দিন অতিক্রম করছিলেন।

গত ১৫ ই জানুয়ারী শুক্রবার হটাৎ করে রক্তক্ষরণ শুরু হলে কুমিল্লা শহরস্থ হাসপাতালে ভর্তি করা হয় এবং অবস্থা খারাপের দিকে গেলে তাকে আইসিইউতে প্রেরণ করা হয়। কিন্তু অবস্থা আরো বেশি অবনতি হলে ১৬ই জানুয়ারি শনিবার তাঁকে ঢাকায় প্রেরণ করা হয়। কিন্তু সকল আয়োজনকে ইতি জানিয়ে ১৭ই জানুয়ারি ভোর ০৩:৩০ মিনিটের সময় তিনি ইহলোক ত্যাগ করেন।

১৮ই জানুয়ারি সোমবার তাঁর গ্রামের বাড়ি কুমিল্লার বুড়িচং থানার উত্তর গ্রামে তাঁকে চির নিদ্রায় শায়িত করা হয়। নাজনীন আহমেদ দুলালীর অকাল মৃত্যুতে বাংলা বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের মাঝে শোকের মাতম নেমে এসেছে।

রাসেল মাহমুদ নামে তাঁর এক সহপাঠী সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে স্মৃতিচারণ করে লিখেন, "সর্বশেষ দুলালীর সাথে আমার কথা হয় গতবছরের সেপ্টেম্বরে। এরপর জীবন ও জীবিকার তাগিদে ব্যস্ত হয়ে পড়েছি। সাদা কালো জঞ্জালে ভরা এই মিথ্যে কথার শহরে অতি সন্তর্পণে নিজেকে বিলীন করে দিয়েছি। স্বার্থপরের মতো টিকে থাকার সংগ্রম করে গেছি, যাচ্ছি। ব্যস্ত নগরীর কোলাহল আজ সবই আছে। তবে আমার ভাবনা, ব্যস্ততা যেন থমকে গেছে। কারণ আমাদের দুলু আর নেই।"

উল্লেখ্য, মৃত্যুকালে তিনি দুই পুত্র সন্তান রেখে গেছেন।

পাঠকের মন্তব্য