ভোট দখলে জামাত শিবিরে জঙ্গিদের জড়ো করছে বিএনপি

ভোট দখলে জামাত শিবিরে জঙ্গিদের জড়ো করছে বিএনপি

ভোট দখলে জামাত শিবিরে জঙ্গিদের জড়ো করছে বিএনপি

করোনা আবহে কয়েক দফায় পুরভোট চলছে। নির্বাচন ঘিরে ঘটেছে হিংসাত্মক ঘটনাও। যথারীতি একে অপরের বিরুদ্ধে তোপ দাগছেন আওয়ামী লীগ-বিএনপি উভয় পক্ষই। এহেন পরিস্থিতিতে দেশের শাসকদল আওয়ামী লীগের অভিযোগ, নির্বাচন জিততে জঙ্গিদের মদত নিচ্ছে খালেদা জিয়ার বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট পার্টি (বিএনপি)।  

রবিবার এক সংবাদ সম্মেলনে চট্টগ্রামের নগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল হোসেন অভিযোগ করেন, বিএনপি তাদের মিত্র জামাত শিবিরের সন্ত্রাসীদের চট্টগ্রামে জড়ো করছে। বিরোধী দলের সমালোচনা করে তিনি বলেন, “কয়েকটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া চট্টগ্রামে নির্বাচনের পরিবেশ এখনও ভাল। আমারা জানতে পেরেছি যে হিংসা ছড়াতে বিএনপি তাদের মিত্র জামাত শিবির ও দলের সশস্ত্র ক্যাডার, দাগি আসামিদের নগরে জড়ো করছে। যারা অতীতে পেট্রল বোমা ছুঁড়েছে, সেই সন্ত্রাসীদের জড়ো করে নির্বাচনের আগে ভীতিকর পরিবেশ সৃষ্টি করছে।

সন্ত্রাসী কার্যক্রম করে চট্টগ্রামকে আতঙ্কের শহরে পরিণত করার চেষ্টা করছে যাতে নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করা যায়। আর সেই দোষ সরকারের ওপর চাপিয়ে দেওয়া যায়।” বিরোধীদের হুঁশিয়ারি দিয়ে হোসেন আরও বলেন, “চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগ এত দুর্বল নয় যে বাইরে থেকে লোক নিয়ে আসতে হবে। চট্টগ্রামের মানুষ মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে, নৌকার পক্ষে। নৌকা দেখলে মানুষ বসে থাকতে পারে না।”

উল্লেখ্য, ডিসেম্বরের ২৮ তারিখ থেকে বাংলাদেশে শুরু হয়েছে পুর নির্বাচন। চলবে ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত। ইতিমধ্যেই প্রথম দু’দফার নির্বাচন শেষ হয়েছে। প্রথম দফার ভোটগ্রহণ পর্ব তুলনামূলক শান্তিপূর্ণভাবে মিটলেও ১৬ জানুয়ারি দ্বিতীয় দফায় ভোটগ্রহণ শুরুর আগেই অশান্তি শুরু হয়। দেশের বিভিন্ন স্থানে প্রতিপক্ষের উপর হামলা, পেট্রল বোমা নিক্ষেপ-সহ নানা ঘটনায় ওইসব এলাকার প্রার্থী, কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে টানটান উত্তেজনা রয়েছে। ভোটের সময় সংঘর্ষের বিষয় মাথায় রেখেই বিপুল সংখ্যায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রগুলোয় বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

পাঠকের মন্তব্য