পরীক্ষার্থীদের জন্য খুলে দেয়া হবে ঢাবি হল 

পরীক্ষার্থীদের জন্য খুলে দেয়া হবে ঢাবি হল 

পরীক্ষার্থীদের জন্য খুলে দেয়া হবে ঢাবি হল 

স্বাস্থ্যবিধি মেনে মার্চের প্রথম সপ্তাহে অনার্স ও মাস্টার্স পরীক্ষার্থীদের জন্য হল খুলে দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর এ কে এম গোলাম রব্বানী।

মঙ্গলবার (২৬ জানুয়ারি) সন্ধ্যায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রভোস্ট কমিটির নিয়মিত সভা শেষে এ কথা জানান তিনি। প্রক্টর এ কে এম গোলাম রব্বানী বলেন, প্রভোস্ট কমিটির সিদ্ধান্ত ছিল সার্বিক করোনাভাইরাস অবস্থা ও বর্তমান অগ্রগতি। এসব বিষয় বিবেচনায় অগ্রাধিকার ভিত্তিতে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর পরীক্ষার্থীদের বিষয়টি বিবেচনায় রেখে মার্চের প্রথম সপ্তাহে পরীক্ষার্থীদের জন্য হল খুলে দেয়ার একটা সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, প্রস্তুতির জন্য এই সময়টুকু নেয়া হচ্ছে। হলের যে সার্বিক প্রস্তুতি, শিক্ষার্থীদের মানসিক প্রস্তুতি, কোভিড অবস্থার যে ব্যাপক পরিবর্তন ও উত্তরণ ঘটছে সেসব বিবেচনা করে মার্চের প্রথম সপ্তাহে শুধুমাত্র যারা মাস্টার্স শেষপর্ব এবং অনার্সের পরীক্ষার্থী তাদেরকে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে হলে উঠানোর একটা সম্ভাবনা নিয়ে আমরা কাজ করছি।

প্রভোস্ট কমিটির সভায় সভাপতিত্ব করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো.আখতারুজ্জামান। সভায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার সিদ্ধান্তের পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হল খোলার পরামর্শ দিয়েছে প্রভোস্ট কমিটি। তবে, অগ্রাধিকার ভিত্তিতে অনার্স ও মাষ্টার পরীক্ষার্থীদের আগে হলে ওঠানো হবে। হলে যাদের রুম বরাদ্দ রয়েছে তাদের হলে নেওয়ার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত হয়েছে। এর বাইরে আর কেউ হলে উঠবে না। এছাড়া, যাদের ছাত্রত্ব শেষ এবং বহিরাগত তাদের ব্যাপারেও বৈঠকে কঠোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। বিষয়টি সুপারিশ আকারে পরবর্তীতে ডিনস কমিটি ও একাডেমিক সভায় উঠানো হবে। আলোচনা শেষে এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

উল্লেখ্য, করোনার কারণে ১৯টি আবাসিক হল বন্ধ রেখে কলা, বিজ্ঞান ও সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের সম্মান ও স্নাতকোত্তরের চূড়ান্ত সেমিস্টারের পরীক্ষা নিচ্ছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। এতে তীব্র ভোগান্তিতে পড়েছেন ঢাকার বাইরের শিক্ষার্থীরা। থাকার জায়গা যোগাড় করতেই অনেকে হিমশিম। এই চাপ নিয়ে আবার পরীক্ষাও দিতে হচ্ছে। এই সংকট সমাধানে দ্রুত হল খুলে দেয়ার দাবি জানিয়েছেন শিক্ষার্থীরা।

পাঠকের মন্তব্য