নারী কেলেঙ্কারি; ঝর্নাসহ দুই নারীকে খুঁজছে পুলিশ 

মামুনুলের নারী কেলেঙ্কারি; ঝর্নাসহ দুই নারীকে খুঁজছে পুলিশ 

মামুনুলের নারী কেলেঙ্কারি; ঝর্নাসহ দুই নারীকে খুঁজছে পুলিশ 

হেফাজতের নেতা মাওলানা মামুনুল হকের কথিত স্ত্রী জান্নাত আরা ঝর্নাকে খুঁজে পাচ্ছে না বলে পুলিশকে জানিয়েছেন বড় ছেলে আব্দুল রহমান। গতকাল শনিবার পর্যন্ত ঝর্নার হদিস পায়নি পুলিশ। এদিকে খোঁজ নিতে গিয়ে আরেক নারীর সঙ্গে মাওলানা মামুনুল হকের যগাযোগের সুত্র খুজে পেয়েছেন পুলিশ। 

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ের একটি রিসোর্টে হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হকের অবরুদ্ধ করার ঘটনা নিয়ে পরিস্থিতি ক্রমেই ঘোলাই হচ্ছে। সর্বশেষ জান্নাত আরা ঝর্নার তিনিটি ডায়রি ফাঁসের পর তাঁদের সম্পর্ক নিয়ে নতুন করে প্রশ্ন উঠেছে। এই পরিস্থিতে মামুনুলের বিষয়টি নিয়ে তদন্তকারীরা তাঁর কথিত স্ত্রীকে খুঁজতে শুরু করেছে পুলিশ। 

গত শুক্রবার মামুনুলের দ্বিতীয় স্ত্রী বলে পরিচিত পাওয়া ঝর্নার ২০০ পৃষ্ঠার তিনটি ডায়রি উদ্ধার হলে সেটি তাঁর মায়ের বলে গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেন তাঁর ছেলে আবদুল রহমান। ঝর্নার ডায়রিতে লেখা- আমাকে বিয়ে না করে গ্রিন রোডের একটি বাসায় রাখেন মাওলানা মামুনুল হক। আমাকে খরচের টাকাও দিতেন। কিন্তু বিয়ে করে স্ত্রীর মর্যাদা দেননি। মামুনুল হক প্রায় দুই বছর আগে বিয়ের কথা বললেও ডায়রিতে বর্ণনা মতে কয়েক মাস আগেও তাঁদের বিয়ে হয়নি। 

গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) একটি সূত্র জানায়, মামুনুলের রিসোর্টকাণ্ডের জেরে নাশকতার ঘটনা ঘটায় ব্যক্তিগত বিষয়টিকেও তদন্তের আওতায় আনা হয়েছে। গণমাধ্যমে কথিত সেই স্ত্রীর ডায়েরি প্রকাশের পর তাদের সম্পর্ক নিয়ে নতুন করে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। 

এ কারণে ঝর্ণার সঙ্গে কথা বলতে চাচ্ছে পুলিশ। তবে গতকাল বিকেল পর্যন্ত ঝর্ণার অবস্থান নিশ্চিত হতে পারেননি তদন্তকারীরা। আর মায়ের সন্ধান চেয়ে আব্দুর রহমান একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করবেন বলেও জানান। ডিবি পুলিশ ঝর্ণার সেই ডায়েরি উদ্ধার করে পর্যালোচনা করছে।

সুত্র মতে মামুনুল-ঝরনার ব্যাপারে খোঁজ নিতে গিয়ে আরেক নারীর ব্যাপারে তথ্য পাওয়া গেছে। ওই নারীর সঙ্গে যোগযোগ রয়েছে মামুনুল হকের। তাঁর সঙ্গে মামুনুলের সম্পর্ক যাচাই বাছাই চলছে। এসব ঘটনা ফৌজদারি আপরাধের সঙ্গে কোনো ধরনের সম্পৃক্ত হলে তাদের আইনের আওতায় আনা হবে।

পুলিশের মতিঝিল বিভাগের উপকমিশনার সৈয়দ নূরুল ইসলাম বলেন, সোনারগাঁর ঘটনায় সোনারগাঁয় মামলা হয়েছে। আমরা নাশকতার ব্যাপারে তদন্ত করছি। আসামিদের গ্রেপ্তারেও আমাদের তদন্ত চলছে।

 

পাঠকের মন্তব্য