ভেঙে দেওয়া হলো নির্মাণাধীন স্কুল ভবনের সেই ড্রপ ওয়াল

ভেঙে দেওয়া হলো নির্মাণাধীন স্কুল ভবনের সেই ড্রপ ওয়াল

ভেঙে দেওয়া হলো নির্মাণাধীন স্কুল ভবনের সেই ড্রপ ওয়াল

ফুলবাড়ীতে নিম্নমানের কাজ হওয়ায় পূর্ব কুরুষা ফেরুষা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নির্মাণাধীন ভবনের ড্রপ ওয়াল ভেঙে দিলেন উপজেলা প্রকৌশলী আসিফ ইকবাল রাজিব। এর আগে ৬ এপ্রিল স্থানীয়দের অভিযোগের ভিত্তিতে স্কুল ভবনের ত্রুটিযুক্ত নির্মাণ কাজ লিখিত নোটিশের মাধ্যমে বন্ধ করেন তিনি।

উপজেলা প্রকৌশলী সূত্রে জানা গেছে, ২০১৯-২০২০ অর্থবছরের ৮৭ লাখ ৭৩ হাজার ৮০৬ টাকা প্রাক্কলিত মূল্যের বিপরীতে ৭০ লাখ ৫৯ হাজার ৫৪৪ টাকা চুক্তি মূল্যে ঐ বিদ্যালয়ের ৩ তলা ফাউন্ডেশন বিশিষ্ট এক তলা ভবনটি নির্মাণের কাজ পায় ঘোষপাড়া কুড়িগ্রামের মেসার্স জহুরুল হক দুলাল নামের একটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান। 

চুক্তি অনুযায়ী ২০২০ সালের ১ ডিসেম্বর নির্মাণ কাজ শুরু করে তারা। কাজের এক পর্যায়ে ৪ ইঞ্চি পুরু ও ৪৮ ইঞ্চি উচ্চতার ড্রপ ওয়াল এবং ১০ ইঞ্চি পুরু ও ২০ ইঞ্চি উচ্চতার বিম ঢালাইয়ের সময় নিম্নমানের কাজ করে ঐ ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান। তারা নিম্নমানের সিমেন্ট ব্যবহারের পাশাপাশি সঠিকভাবে ভাইব্রেটর মেশিন ব্যবহার না করেই ঢালাইয়ের কাজ শেষ করেন। ফলে সাটারিং খোলার পর ঝুরঝুর করে খুলে পড়তে থাকে বিম ও ড্রপ ওয়ালের মসলা। বিষয়টি স্থানীয়দের নজরে আসলে তারা ঐ ড্রপ ওয়াল ও বিম ভেঙে নতুন করে তা নির্মাণের দাবি জানান। পরে গত রবিবার বিকালে নির্মাণাধীন স্কুল পরিদর্শন করে শ্রমিক দিয়ে ত্রুটিপূর্ণ ঐ ড্রপ ওয়াল ভাঙা শুরু করেন উপজেলা প্রকৌশলী। গতকাল সোমবারও এই ভাঙার কাজ চলে।

এলাকাবাসী কৃষ্ণ চন্দ্র রায় ও ছাফাদ আলীসহ অনেকেই জানান, স্কুল ভবনের কাজ নিম্নমানের হওয়ায় আমরা কাজ বন্ধ করে দিয়ে উপজেলা প্রকৌশলীকে জানাই। তিনি এসে ত্রুটিপূর্ণ ড্রপ ওয়াল ভাঙার নির্দেশ দিলে মিস্ত্রিরা নির্মাণাধীন ভবন ভাঙতে শুরু করে।

এ ব্যাপারে উপজেলা প্রকৌশলী মো. আসিফ ইকবাল রাজীব জানান, নিম্নমান ও ত্রুটিপূর্ণ কাজের জন্য নির্মাণাধীন স্কুল ভবনের ড্রপ ওয়াল ভাঙা হচ্ছে। এরপর যদি বিম ভাঙার প্রয়োজন হয় তাও করা হবে। তিনি আরো জানান, এই ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান এ উপজেলায় মোট পাঁচটি বিদ্যালয় ভবনের নির্মাণ কাজ করছে। পূর্ব কুরুষা ফেরুষা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কাজে ত্রুটি করায় বাকি কাজগুলোও বন্ধ করা হয়েছে। এটা ঠিক হবে তারপর বাকিগুলোর কাজ করতে দেওয়া হবে। 

পাঠকের মন্তব্য