দম্পতি বেঁচে গেলেও রক্ষা পায়নি শিশুটি

দম্পতি বেঁচে গেলেও রক্ষা পায়নি শিশুটি

দম্পতি বেঁচে গেলেও রক্ষা পায়নি শিশুটি

ঠাকুরগাঁওয়ের রানীশংকৈলে চিরকুটে আত্মহত্যার কথা উল্লেখ করে এক দম্পতি তাদের শিশুকন্যাসহ বিষপান করেছে। এ ঘটনায় দম্পতি বেঁচে গেলেও মারা যায় কন্যাশিশুটি (৫)। 

শুক্রবার (১৬ এপ্রিল) রাতে উপজেলার কদমপুর উমরাডাঙ্গী পূর্বপাড়া গ্রামে ঘটনাটি ঘটে।

বিষয়টি শনিবার (১৭ এপ্রিল) নিশ্চিত করেছেন রানীশংকৈল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাহিদ ইকবাল।

বর্তমানে ওই দম্পতি দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছেন। তারা হলেন কদমপুর উমরাডাঙ্গী পূর্বপাড়া গ্রামের আজিম উদ্দীনের ছেলে ইয়াসিন আলী ও তার স্ত্রী শিমু। তাদের ৫ মাসের কন্যাসন্তান ইসরাত জাহান মারা যায়।

ওসি জাহিদ ইকবাল জানান, 'পারিবারিক কলহের জেরে ওই দম্পতি নিজেরাসহ কন্যাসন্তানকে নিয়ে বিষপানে আত্মহত্যার চেষ্টা করে। বিষ খাওয়ার ঘটনা বুঝতে পেরে পরিবারের অন্য সদস্যরা তাদের রানীশংকৈল স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান।'

'পরে সেখান থেকে তাদের ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে রেফার করা হয়। পথে শিশুটি মারা যায়। পরে দম্পতিকে দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফাট করা হয়। বর্তমানে দম্পতি সুস্থ আছে।' বলেন তিনি।

ওসি আরো জানান, আত্মহত্যাচেষ্টা করার আগে দম্পতি তাদের ঘরে একটি চিরকুট রেখে যায়। সেখানে লিখা ছিল 'আমরা আর বাঁচতে চাই না।' ইতোমধ্যে কন্যাশিশুর লাশের ময়নাতদন্ত করার জন্য ঠাকুরগাঁও মর্গে পাঠিয়েছি।

পাঠকের মন্তব্য