ক্ষান্ত হবো না; লিখে যাবো শয়তানের বিনাশ হওয়া পর্যন্ত 

গোলাম সারয়ার, গবেষক ও কলামিস্ট

গোলাম সারয়ার, গবেষক ও কলামিস্ট

দোস্তরা জিগায়, হেফাজত নিয়ে লিখা কবে ক্ষান্ত দিবা ? বলেছি, শয়তানের বিনাশ হওয়া পর্যন্ত। 

মনে পড়ে ! এদেশে হঠাৎ করে এক ইংরেজ ওয়াজি আসলো ! মা খাদিজার ভার্জিনিটি নিয়ে ওয়াজ শুরু করলো। হযরত আলীকে মদদী প্রমাণে ওয়াজ শুরু করলো। আসতাগফিরুল্লাহ। আল আযহারে দু পাতা পড়ে এসে ডক্টর বনে গেলো। শেষে জানলাম সেই ডিগ্রী নাই। ভুয়া।   

তারপর আমরা কলম ধরলাম, হাজারে হাজারে, কাতারে কাতারে। এক মন্ত্রী মাত্র রেসপন্ড করে একটি বক্তব্য দিলো। ওয়াজি ডক্টর সাহেব এক গোত্তাতেই মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুরে গিয়ে মুখ উঠালো!

জি, এরাই ওয়াজ করে, হযরত বেলালের বুকের উপর পাথর চাপা দিয়ে ফেলে রাখলেও তিনি ঈমান ছাড়েন নি। কিন্তু নিজের বেলাতে ফাইভ স্টার হোটেল লাগে। দাসী বান্ধি লাগে। প্রাডো গাড়ি লাগে। 

বাংলাদেশ নব্বইভাগ মুসলিমের দেশ। আমাদের ইসলাম শিখাতে আইসোনা। ইসলাম চাইনাদেরকে শিখাও। সকল ভন্ডকে মালয়েশিয়ার ম্যাসেজ পার্লারে পাঠানো হবে। দক্ষিণ এশিয়ার প্রস্টিটিউশনের স্বর্গ ভূমি হলো থাইল্যান্ড, ফিলিপাইন ও মালয়েশিয়া। ওখানে থেকে বাংলাদেশের মতো পুণ্যভূমিকে ইসলাম শেখানোর ধৃষ্টতা দেখাবেনা।

ফেসবুক স্ট্যাটাস লিঙ্ক : Md Golam Sarwar
লেখক : গবেষক ও কলামিস্ট 

পাঠকের মন্তব্য