অসহায়দের ঈদ উপহার দিলো কিশোরগঞ্জ জেলা যুবলীগ

অসহায়দের ঈদ উপহার দিলো কিশোরগঞ্জ জেলা যুবলীগ

অসহায়দের ঈদ উপহার দিলো কিশোরগঞ্জ জেলা যুবলীগ

আশরাফুল ইসলাম তুষার, কিশোরগঞ্জ : রহিমা খাতুন চার বছর বয়সী কন্যাসন্তান এবং স্বামীকে নিয়ে কিশোরগঞ্জ উকিলপাড়া এলাকায় থাকেন বাসা ভাড়া নিয়ে। একমাত্র উপার্জনক্ষম স্বামী একটি ফার্নিচারের দোকানে কর্মচারী হিসেবে চাকরি করতেন। করোনা মহামারিতে দুই মাস আগে তার চাকরি চলে যায়। পরে তিনি কোনোমতে খেয়ে না খেয়ে দিন পার করছিলেন। ঈদ সামনে এলে সন্তান ও মা বোনের চাহিদার কথা শুনে হতাশ হয়ে যান স্বামী। পরিবার রেখে চলে যান গ্রামের বাড়ি নেত্রকোনায়।

বুধবার (১২ মে) দুপুরে লিটল ফ্রেন্ডস কিন্ডারগার্টেন স্কুল মাঠে কিশোরগঞ্জ জেলা যুবলীগের সদস্য, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি, সাবেক এজিএস বাছির উদ্দিন রিপন এলাকার দুস্থ, অসহায় ও কর্মহীন লোকদের মাঝে ঈদসামগ্রী প্রদান করেন। সেখানে কথা হয় অসহায় নারী রহিমা খাতুনের সঙ্গে।

রহিমা খাতুন জানান, মঙ্গলবার তার স্বামী সন্তান ও তাকে রেখে গ্রামের বাড়ি নেত্রকোনা চলে যান তার মা-বাবা, ভাই-বোনদের সঙ্গে ঈদ করতে। ভাড়ার টাকা নেই বিধায় সন্তানসহ তাকে রেখে যান কিশোরগঞ্জের ভাড়া বাসায়। ঈদ করার জন্য পাঁচশত টাকা হাতে দিয়ে গেছেন স্বামী। সন্তান ঈদের দিন পোলাও মাংস খাবে বলে টাকাটা কাছে রেখেছিলেন। আজ তিনশত টাকা দিয়ে মেয়েকে ফুটপাত থেকে দুটি জামা কিনে দিয়েছেন। এখন সন্তানদের খাওয়াবেন কী, তা নিয়ে চিন্তিত ছিলেন।

মঙ্গলবার রহিমা জানতে পারেন জেলা যুবলীগ নেতা বাছির উদ্দিন রিপন খাদ্য সহায়তা দিচ্ছেন। তিনিও অন্যদের মতো খাদ্য সহায়তা পেয়েছেন।যা দিয়ে খুব ভাল ভাবে ঈদ চলে যাবে তাদের। এসব খাদ্যসামগ্রীর মধ্যে ছিল ১ কেজি পোলাও, ১লিটার তেল, ১ কেজি পেয়াজ, ১ কেজি চিনি, ১ কেজি লবণ, ১ কেজি ডাল, ২ প্যাকেট সেমাই,১প্যাকেট দুধ, কিসমিস, সাবান ইত্যাদি।

জেলা যুবলীগের অন্যতম নেতা বাছির উদ্দিন রিপন জানান,কিশোরগঞ্জে করোনায় বিপুলসংখ্যক কর্মহীন, অসহায়, দুস্থ, দরিদ্র লোকজন তীব্র অর্থনৈতিক ও খাদ্য সংকটে রয়েছেন। তাদের কথা চিন্তা করে ঈদকে সামনে রেখে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ ও সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান নিখিল ভাই এর আহবানে শতাধিক মানুষকে ঈদ উপহারসামগ্রী দেয়া হয়েছে। এলাকার কোনো কর্মহীন, অসহায় লোক যেন খাবারের জন্য কষ্ট না করেন সেজন্য এ খাদ্য সহায়তা অব্যাহত থাকবে বলেও জানান তিনি।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন পৌরসভার প্যানেল মেয়র আব্দুল গণি, সদর উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক জসিম উদ্দিন, যুবলীগ নেতা খাইরুল মোল্লা, মাহফুজ, দেলোয়ার, স্বরমীম, মাসুদ, জাকির, ককেস, নাসির প্রমুখ।

পাঠকের মন্তব্য