মুসলিম নারীদের ভোটে দাঁড়ানো হলো ইসলাম বিরোধী

ইমাম সাব্বির আহমেদ সিদ্দিকী

ইমাম সাব্বির আহমেদ সিদ্দিকী

মুসলিম নারীরা ভোটে দাঁড়ান কেন ? গুজরাট বিধানসভা নির্বাচনের প্রাক্কালে সাংবাদিকদের সামনে এমনই প্রশ্ন তুলছেন আহমেদাবাদের জামা মসজিদের শাহি ইমাম সাব্বির আহমেদ সিদ্দিকী। তাঁর মতে, মুসলিম নারীদের ভোটে দাঁড়ানো ইসলাম বিরোধী।

সাব্বির আহমেদ সিদ্দিকীর মতে, নারীদের ভোটের টিকিট দেওয়াটাই ইসলাম বিরোধী। তাঁর যুক্তি, ‘পুরুষ মানুষ নামাজ পড়ছে। আপনি কি একজন মহিলাকে নামাজ পড়তে দেখেছেন? নামাজ সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। যদি ইসলামে নারীদের এভাবে মানুষের সামনে আসা জায়েজ হতো, তাহলে তাঁদের মসজিদে আসাতে বাধা দেওয়া হতো না। ইসলামে নারীর স্থান আছে। তাই যারা নারীদের টিকিট দেবেন তাঁরা ইসলামের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ করছেন।’

এই ধর্মীয় নেতার মতে, নারী জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত হলে তাঁকে সভা-সমিতিতে বক্তৃতা দিতে হয়। প্রচারও চালাতে হয়। হিজাব পরা সম্ভব হয় না। তাই তিনি বলেন, ‘ইসলামে নারীর কণ্ঠও নারীই। এ জন্য আমি এর ঘোর বিরোধী।’

এদিকে, ভারতের প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেসের সাবেক সভাপতি রাহুল গান্ধী হিন্দুত্ববাদী বিজেপিকে মুসলিম বিরোধী বলে মন্তব্য করে নতুন করে বিতর্ক ডেকে এনেছেন। ফলে রাজনৈতিক চর্চায় নারীদের নিয়ে মন্তব্য এখন বিতর্কের কেন্দ্রবিন্দুতে।

রাহুল গান্ধী বিজেপি এবং রাষ্ট্রীয় স্বয়ং সেবক সংঘকে (আরএসএস) নারীবিরোধী বলে গতকাল রোববার ভারত জোড়ো যাত্রায় অভিযোগ করেছেন রাহুল গান্ধী। তাঁর অভিযোগ, এই কারণেই বিজেপি নেতারা স্লোগান দেন ‘জয় শ্রী রাম’। তাঁরা তাই ‘জয় সিয়া রাম’ বা ‘জয় সীতা রাম’ স্লোগান দেন না। রাহুলের এই মন্তব্যকে ঘিরে বিতর্কে অংশ নিয়ে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী গিরিরাজ সিং তাঁকে ‘মৌসুমি হিন্দু’ বলে কটাক্ষ করেন।

পাঠকের মন্তব্য