Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, শুক্রবার, ১৯ অক্টোবর ২০১৮ , সময়- ১০:১৩ অপরাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
যারা বহিষ্কারের ঘোষণা দিয়েছেন তারা বিকল্পধারার কেউ নন : মাহী বি চৌধুরী  আমরা বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের স্বাধীনতা এখনও পুরোপুরি অর্জন করতে পারিনি : রাষ্ট্রপ্রতি সর্বত্র মানুষের মঙ্গলের সুযোগ করে দিতে শেখ হাসিনার সরকার কাজ করছে : অর্থমন্ত্রী  সংস্কৃতি অঙ্গনে কালো ছায়া নেমে এলো | প্রজন্মকণ্ঠ চার দিনের সরকারি সফর শেষে দেশে ফিরছেন প্রধানমন্ত্রী আজ | প্রজন্মকণ্ঠ পবিত্র ওমরাহ পালন করেছেন প্রধানমন্ত্রী, দেশবাসীর জন্য দোয়া প্রার্থনা | প্রজন্মকণ্ঠ গিটারের জাদুকরকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে ভক্তদের কান্না আর ফুলেল শুভেচ্ছা প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শেষ হচ্ছে আজ ধর্মীয় উৎসব দুর্গাপূজা | প্রজন্মকণ্ঠ আইয়ুব বাচ্চু ছিলেন সংগীত যোদ্ধা, মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী : ওবায়দুল কাদের বিকল্প ধারার তিন শীর্ষ নেতাকে বহিস্কার করে নতুন কমিটি গঠন

মোবাইল ফোনে অপরাধ বাড়ছে


অনলাইন ডেস্ক

আপডেট সময়: ৫ ফেব্রুয়ারী ২০১৭ ৮:০৫ পিএম:
মোবাইল ফোনে অপরাধ বাড়ছে


   
মোবাইল ফোন এখন হাতে হাতে। স্মার্টফোনের ব্যবহারও দ্রুত বাড়ছে।তথ্য-প্রযুক্তির এই বিস্তার মানুষের জীবনযাত্রাকেও অনেক সহজ করছে। কিন্তু আলোর নিচে থাকে অন্ধকার। তেমনি মোবাইল ফোন জনজীবনকে সমৃদ্ধ করার পাশাপাশি বাড়ছে মোবাইল ফোন কেন্দ্রিক অপরাধ। বাড়ছে বিড়ম্বনা। প্রতিদিনই প্রতারিত হচ্ছে বহু মানুষ। লোভের ফাঁদ পেতে প্রতারকরা হাতিয়ে নিচ্ছে টাকা-পয়সা। বিশেষ কৌশলে ফোন নম্বর নকল করে সাধারণ ব্যবহারকারীকে ঠেলে দিচ্ছে বিপদের মুখে। বিকৃত ছবি কিংবা ভুয়া তথ্য প্রচার করে কেড়ে নিচ্ছে অনেকের সুনাম। হুমকির পর হুমকি দিয়ে কেড়ে নিচ্ছে রাতের ঘুম। অথচ অপরাধীরা বেশির ভাগ খাই থেকে যাচ্ছে ধরাছোঁয়ার বাইরে। অপরাধীদের ঠিকমতো শনাক্তই করা যাচ্ছে না।

পৃথিবী এগোচ্ছে, প্রযুক্তি এগোচ্ছে। এই অগ্রগতি চলতেই থাকবে। ফলে মানবজীবনে প্রযুক্তির ব্যবহার যেমন বাড়তেই থাকবে, একইভাবে প্রযুক্তিনির্ভর অপরাধও বাড়বে। এটাই স্বাভাবিক। বর্তমান সরকার ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ে তোলার কাজ করছে। দেশের উন্নয়ন ত্বরান্বিত করার জন্য এটি করা অপরিহার্য। কিন্তু একই সঙ্গে ডিজিটাল অপরাধ দমনেও সরকারকে প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি রাখতে হবে। ব্যবহারকারীদেরও এসব সচেতন হতে হবে। তাদের সচেতন করার প্রয়োজনীয় প্রক্রিয়া অনুসরণ করতে হবে। কোনো প্রতারক অন্য কারো ফোন নম্বর ব্যবহার করে হুমকি দিলে কিংবা অন্যায়ভাবে অর্থ দাবি করলে, বিষয়টির সত্যাসত্য যাচাই করতে হবে। নিজে না বুঝলে যাঁরা বোঝেন তাঁদের পরামর্শ নিতে হবে।
 
প্রয়োজনে আইনশৃংখলা রাকারী বাহিনীর সহায়তা নিতে হবে। তা না করে বিকাশ কিংবা অন্য কোনো মাধ্যমে দাবি করা অর্থ পরিশোধ করে দিলে তাতে অপরাধীরা আরো উৎসাহিত হবে। প্রকাশিত খবর থেকে জানা যায়, জেলা প্রশাসকের (ডিসি) নম্বর নকল করে, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) কিংবা তাঁদের কারো নম্বর নকল করে ঠিকাদার বা প্রকল্প কর্মকর্তার কাছে টাকা চাওয়া হয়। কেউ কেউ আবার বিকাশে কিংবা অন্য কোনো মাধ্যমে টাকা পরিশোধও করেন। তাঁদের দুর্বলতা কোথায় ? কেন তাঁরা যাচাই না করে টাকা দেন ? প্রযুক্তিনির্ভর অপরাধ দমনে আইনশৃংখলা রাকারী বাহিনীগুলোর সমতা আরো বাড়াতে হবে। প্রয়োজনীয় উপকরণ তাদের দিতে হবে। এসব বাহিনীতে প্রযুক্তিতে লোকজন নিয়োগ দিতে হবে এবং প্রতিনিয়ত আসা নতুন প্রযুক্তির বিষয়ে প্রশিণের ব্যবস্থা রাখতে হবে। নিয়ন্ত্রক সংস্থাগুলোতে কেউ অপরাধে জড়িত কি না তা নজরদারিতে রাখতে হবে। আমরা চাই না, কল্যাণের জন্য যে প্রযুক্তি তা মানুষের জীবনকে দুর্বিষহ করে তুলুক।


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top