Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, শুক্রবার, ২০ জুলাই ২০১৮ , সময়- ৬:২২ অপরাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
নির্বাচনে জনগণের ইচ্ছার প্রতিফলন ঘটবে, আবারও আ'লীগ জোয়ারে ভাসবে : ওবায়দুল কাদের শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের পরিদর্শন প্রতিবেদন বস্তুনিষ্ঠ ও সঠিক নয় : বাংলাদেশ ব্যাংক প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আওয়ামী লীগের গণসংবর্ধনা আগামীকাল বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে নয়াপল্টনে নেতাকর্মীদের জমায়েত প্রধানমন্ত্রীর গণসংবর্ধনা শনিবার, যানবাহন চলাচলে ডিএমপি’র নির্দেশনা রাজশাহী, সিলেট ও বরিশাল সিটি নির্বাচন নিয়ে সরব বিদেশিরা  বাংলাদেশ ব্যাংকের ভল্টের নিরাপত্তা : ব্যাপক তোলপাড় সারাদেশ  শর্তসাপেক্ষে শান্তিপূর্ণ সমাবেশ কর্মসূচী করার অনুমতি পেল বিএনপি অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলমকে আবারো হত্যার হুমকি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে গণভবনে জার্মানীর পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর সৌজন্য সাক্ষাত

কালকিনিতে চেতনা নাশক খাইয়ে সেনা সদস্যকে অপহরন’ আটক ২


ম.হারুন অর রশিদ, মাদারীপুর প্রতিনিধি

আপডেট সময়: ৯ সেপ্টেম্বর ২০১৭ ৯:৪৯ এএম:
কালকিনিতে চেতনা নাশক খাইয়ে সেনা সদস্যকে অপহরন’ আটক ২

মাদারীপুরের কালকিনিতে আখতারুজ্জামান নামের এক সাবেক সেনা সদস্যকে চেতনা নাশক খাইয়ে অপহর করা হয়েছে। তাকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় নূরমোহাম্মদ ও আজম নামের দুই অপহরকারীকে আটক করেছে থানা পুলিশ। এ বিষয় গতকাল শুক্রবার থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে ভুক্তভোগীর পরিবার।

পুলিশ ও ভুক্তভোগীর পরিবার সুত্রে জানা গেছে, পৌর এলাকার উত্তর কৃষ্ণনগর গ্রামের তালেব আলী সরদারের ছেলে সাবেক সেনা সদস্য আখতারুজ্জামানকে তার নিজ বাড়ি থেকে অপহরন করে নিয়ে যায় উপজেলা আ’লীগের সহ-সভাপতি খায়রুল আলম খোকন বেপারীর ছেলে ছাত্রলীগ নেতা ইফতেখার আলম রিশাদ, ছামাদ ও নূরমোহাম্মদসহ ৭/৮ জন যুবক।

এরপর তাকে উপজেলার সাহেবরামপুর এলাকায় নিয়ে জোরপূর্বক চেতনা নাশক খাওয়ানো হয়। এতে করে আখতারুজ্জামান অসুস্থ হয়ে পরে। পরে আখতারুজ্জামানকে জিম্মি করে তার পরিবারের কাছে ফোনে ৫ লক্ষ টাকা মুক্তিপন দাবি করে অপহরনকারীরা। পরে বিষয়টি জানতে পেরে উপজেলা চেয়ারম্যান তৌফিকুজ্জামান শাহিনের সহযোগীতায় ভুক্তভোগীর পরিবারের লোকজন মিলে অপহরনকারী চক্রের মুল হোতা নুরমোহাম্মদের গ্রামের বাড়ি উপজেলার দক্ষিন সাহেবরামপুর থেকে বৃহস্পতিবার রাতে তাকে উদ্ধার করেন।

পরে তাকে অচেতন অবস্থায় কালকিনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। এ বিষয় কালকিনি থানায় একটি মামলা দায়ের করেন সেনা সদস্যের স্ত্রী ইরানী বেগম। এবং অপহরনকারী নূরমোহাম্মদ ও আজমকে ঘটনাস্থল থেকে আটক করেন কালকিনি থানা পুলিশ। ভুক্তভোগী আখতারুজ্জামান বলেন, আমাকে অপহরনের সময় অপহরকারী চক্রের সাথে ছাত্রলীগ নেতা ইফতেখার আলম রিশাদ, ছামাদ ও সাকিলসহ বেশ কয়েকজন জরিত ছিলেন।

কালকিনি উপজেলা চেয়ারম্যান তৌফিকুজ্জামান শাহিন বলেন, অপহরেন বিষয়টি জেনে আখতারুজ্জামানকে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করেছি। অপরাধীদের কোন ছাড় দেয়া হবেন। এ ব্যাপারে কালকিনি থানার ওসি বলেন, এ বিষয় থানায় মামলা হয়েছে। দুইজনকে গ্রেপ্তার করা হয়ছে। বাকিদের ধরার জোর প্রচেষ্টা চলছে।


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top