Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, বুধবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৮ , সময়- ১২:০৪ অপরাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
খালেদা জিয়ার প্রার্থিতা নিয়ে রিটের আদেশ আগামীকাল  মনোনয়নপত্র ফিরে পাচ্ছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী হিরো আলম নির্বাচনী প্রচার শুরু করবেন শেখ হাসিনা, ১২ ডিসেম্বর সিঙ্গাপুর যাচ্ছেন সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ সহস্রাব্দ উন্নয়ন লক্ষ্য ২০১৫ থেকে টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট ২০৩০ প্রধান নির্বাচন কমিশনাসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার রুল ভোট প্রচারণায় সোহেল তাজের ছেলে ব্যারিস্টার তুরাজ  মহাজোটের চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা । প্রজন্মকণ্ঠ  আওয়ামী লীগ শাসনামলে বাংলাদেশের উন্নয়ন চিত্র দেশের ৫৮টি নিউজ পোর্টালের ওয়েবসাইট বন্ধের নির্দেশ দিলো বিটিআরসি

ইবির 'সি' ও 'জি' ইউনিট নিয়ে পৃথক তদন্ত


অনলাইন ডেস্ক

আপডেট সময়: ১০ ডিসেম্বর ২০১৭ ১২:৫৩ পিএম:
ইবির 'সি' ও 'জি' ইউনিট নিয়ে পৃথক তদন্ত

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের মানবিক ও সমাজবিজ্ঞান অনুষদভুক্ত 'সি' এবং ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদভুক্ত 'জি' ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্নপত্রে অসঙ্গতি থাকায় পৃথক দুটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। শনিবার রাতে উপাচার্য অধ্যাপক হারুন উর রশিদ আসকারী এ তদন্ত কমিটি গঠন করেছে বলে জানিয়েছেন ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার এস এম আব্দুল লতিফ।

শনিবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে উপাচার্য অধ্যাপক হারুন উর রশিদ আসকারী তার নির্বাহী ক্ষমতাবলে এ দুটি ইউনিটের প্রশ্নে অসঙ্গিতির কারণ অনুসন্ধানে পৃথক দুটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছেন।

রেজিস্ট্রার অফিস সূত্রে জানা যায়, গত ৫ ডিসেম্বর মানবিক ও সমাজবিজ্ঞান অনুষদভুক্ত 'সি' ইউনিটের পরীক্ষায় প্রথম শিফটের প্রশ্নপত্রে দ্বিতীয় শিফটেরও পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এ কারণে দ্বিতীয় শিফটের পরীক্ষা বাতিল ও তৃতীয় শিফটের পরীক্ষা স্থগিত করা হয়। পরে ৮ ডিসেম্বর ওই দুই শিফটের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। প্রশ্নপত্রের এ অসঙ্গতির কারণ অনুসন্ধানে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. শাহিনুর রহমানকে আহ্বায়ক করে পাঁচ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করে প্রশাসন।

কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন- ফলিত বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি অনুষদের ডিন অধ্যাপক শামসুল আলম, বায়োটেকনোলজি অ্যান্ড জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক রেজওয়ানুল ইসলাম এবং বাংলা বিভাগের অ্যধাপক রবিউল হোসেন অনু। কমিটিকে শিগগিরই তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

এছাড়া গত ৩ ডিসেম্বর ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদভুক্ত জি ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় অবাণিজ্য শিফটের মধ্যে ১৫ জন বাণিজ্য শাখার ভর্তিচ্ছুর আসন বিন্যাস হয়।

এতে বাণিজ্য শাখার এই ১৫ ভর্তিচ্ছু অবাণিজ্য শাখার প্রশ্নে পরীক্ষা দিতে পারেনি। পরে ৫ ডিসেম্বর এই ১৫ ভর্তিচ্ছুর পুনঃপরীক্ষা নেয়া হয়। এ অসঙ্গতির কারণ অনুসন্ধানে কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অ্যধাপক আহসান উল আম্বিয়াকে আহ্বায়ক করে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন- অধ্যাপক দীপক কুমার পাল এবং অ্যধাপক অরবিন্দ সাহা। এ কমিটিকেও শিগগিরই তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অ্যধাপক হারুন উর রশিদ আসকারী জাগো নিউজকে বলেন, এসব অসঙ্গতির কারণ জানার জন্যই তদন্ত কমিটি গঠন করেছি। যাতে ভবিষ্যতে এ ধরনের ঘটনার পুনরাবৃত্তি না হয় সেজন্য এর প্রতিকারের ব্যবস্থা করা হবে। এছাড়া এসবের পেছনে যদি কারও অশুভ উদ্দেশ্য থাকে আর তা প্রমাণিত হলে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top