Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, বুধবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৮ , সময়- ১০:৩০ অপরাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
তথ্য প্রযুক্তি খাতে প্রকৃত উন্নয়নের চেয়ে প্রচার বেশি বিএনপি সঙ্গে ঐক্য গড়ে কী পেলেন ড. কামাল, হারালেন পুরোনো ও পরীক্ষিত বন্ধুদের সিএমএইচে ভর্তি প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচটি ইমাম  ‘#মি টু’ আন্দোলনের মুখে শেষ পর্যন্ত পদত্যাগে বাধ্য হলেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী  শ্বাসরুদ্ধকর পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে দুই নারী জঙ্গির আত্মসমর্পণ, অপারেশন সমাপ্তি ঘোষণা বঙ্গবন্ধু শহীদ ছোট ছেলে শেখ রাসেলের ৫৪তম জন্মদিন, আগামীকাল | প্রজন্মকণ্ঠ জাতীয় ঐক্যকে ‘জগাখিচুড়ি’ বললেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের নরসিংদীর মাধবদীতে জঙ্গি আস্তানা নিলুফা ভিলা থেকে দুই জঙ্গির আত্মসমর্পণ  আত্মসমর্পণের আহ্বান : সাড়া দিচ্ছে না 'নিলুফা ভিলা'য় অবস্থানরত জঙ্গিরা, যোগাযোগের চেষ্টা চলছে  বৈশ্বিক প্রতিযোগিতা সক্ষমতা সূচকে এক ধাপ পিছিয়েছে বাংলাদেশ । প্রজন্মকণ্ঠ 

নির্বাচনী এলাকাগুলোতে চলছে অস্ত্রের ঝনঝনানি: ফখরুল


অনলাইন ডেস্ক

আপডেট সময়: ২৭ ডিসেম্বর ২০১৭ ১০:৫৯ এএম:
নির্বাচনী এলাকাগুলোতে চলছে অস্ত্রের ঝনঝনানি: ফখরুল

স্থানীয় সরকার নির্বাচনী এলাকাগুলোতে অস্ত্রের ঝনঝনানি চলছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেছেন, আগামী ২৮শে ডিসেম্বর অনুষ্ঠিতব্য কুমিল্লার লাকসামের চারটি ইউপি (ইউনিয়ন পরিষদ) নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আওয়ামী সন্ত্রাসীদের বেপরোয়া তাণ্ডব শুরু হয়েছে। শেষ মুহূর্তের প্রচার প্রচারণায় বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী ও তাদের কর্মী সমর্থকদের ওপর হামলা চালাতে দানবের ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছে আওয়ামী ক্যাডার বাহিনী। গতকাল গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি এসব কথা বলেন। 

আগামী ২৮ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিতব্য লাকসামের ৪টি ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ‘আওয়ামী সন্ত্রাসীদের’ বেপরোয়া তাণ্ডব শুরু হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

তিনি বলেছেন, লাকসামের ৪টি ইউনিয়নে আসন্ন নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বর্তমান শাসকগোষ্ঠী গায়ের জোরে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থীদেরকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজয়ী করতে নির্বাচনী এলাকাগুলোতে আওয়ামী ক্যাডারদেরকে লেলিয়ে দিয়েছে। নির্বাচনী এলাকাগুলোতে চলছে আওয়ামী সন্ত্রাসীদের অস্ত্রের ঝনঝনানি।

২৬ ডিসেম্বর মঙ্গলবার সংবাদমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে এ অভিযোগ করেন বিএনপির এই নেতা। তার দাবি, ২৫ ডিসেম্বর সোমবার মুদাফরগঞ্জ উত্তর ইউনিয়নের কয়েকটি এলাকায় বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী মো. শাহ আলম তার কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে গণসংযোগ করতে গেলে সম্পূর্ণ বিনা উস্কানিতে সরকারদলীয় প্রার্থী শাহিনের অস্ত্রধারী ক্যাডার বাহিনী পুলিশের উপস্থিতিতে তার ওপর আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়। হামলায় বিএনপি সমর্থিত চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী শাহ আলমের ছোট ভাই খোরশেদ আলমসহ ১৫ জন আহত হন। ভাঙচুরের মাধ্যমে শাহ আলমের ব্যবহৃত গাড়িটির ব্যাপক ক্ষতিসাধন করা হয়। আহতদের মধ্যে খোরশেদ আলমের অবস্থা খুবই গুরুতর। তিনি বর্তমানে কুমিল্লার একটি হাসপাতালে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছেন। 

বিবৃতিতে তিনি বলেন, ‘শেষ মুহূর্তের প্রচার-প্রচারণায় বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী ও তাদের কর্মী-সমর্থকদের ওপর হামলা চালাতে দানবের ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছে আওয়ামী ক্যাডার বাহিনী। অবৈধ পন্থায় ক্ষমতা দখলকারীগোষ্ঠী দীর্ঘদিন ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত থাকার বাসনায় সন্ত্রাস সৃষ্টিকেই এখন প্রধান অবলম্বন মনে করছে। পুলিশের উপস্থিতিতে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী ও সমর্থকদের ওপর আওয়ামী সন্ত্রাসীদের হামলায় এটি সুস্পষ্ট যে, দেশ এখন আইন-কানুনের দ্বারা পরিচালিত হচ্ছে না, বরং দেশ পরিচালিত হচ্ছে সন্ত্রাসী কায়দায়।’

তিনি বলেন, প্রার্থী ও সমর্থকদের ভয় পাইয়ে দিতে এবং নির্বাচন থেকে দূরে সরিয়ে রাখতেই বর্তমান শাসকগোষ্ঠী উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে অতীতের স্থানীয় নির্বাচনগুলোর মতোই লাকসামের ৪টি ইউনিয়নেও এই ধরনের বর্বরোচিত, অমানবিক ও ন্যাক্কারজনক ঘটনার অবতারণা করছে।  বর্তমানে দেশে সুষ্ঠু গণতান্ত্রিক পরিবেশ না থাকার কারণে মানুষ তাদের পছন্দের প্রার্থীকে নির্বাচিত করতে ভোট দেবার অধিকার থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।

ফখরুল বলেন, ‘আমি লাকসামের ৪টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আওয়ামী সন্ত্রাসীদের দৌরাত্ম ও ন্যাক্কারজনক হামলার পূণরাবৃত্তি বন্ধে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর জরুরি হস্তক্ষেপ দাবি করছি। আওয়ামী ক্যাডারদের হামলায় হাসপাতালে মূমুর্ষ অবস্থায় চিকিৎসাধীন গুরুতর আহত খোরশেদ আলমসহ বিএনপি সমর্থিত প্রার্থীর অন্যান্য কর্মী-সমর্থকদের সুস্থতা কামনা করছি।’


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top