Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৮ , সময়- ৮:৪৩ অপরাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
নরসিংদীর ‘জঙ্গি আস্তানায়’ যৌথবাহীনির অভিযান সমাপ্ত  এই মুহূর্তে কোনও রাজবন্দি নাই, যারা আছে তারা সবাই অপরাধী : তথ্যমন্ত্রী অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা ছাড়া দুদক টিকবে না : দুর্নীতি দমন কমিশন নরসিংদীর 'জঙ্গি আস্তানা' থেকে দু'টি লাশ উদ্ধার, জঙ্গিদের আত্মসমর্পণের আহ্বান ৮ হাজার রোহিঙ্গার প্রথম তালিকা যাচাই করে তথ্য স্বীকার করেছে মায়ানমার জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকি মোকাবিলায় সম্মিলিত প্রচেষ্টার বিকল্প নেই : পানি সম্পদ মন্ত্রী চারদিনের সফরে রিয়াদের উদ্দেশে ঢাকা ছেড়েছেন প্রধানমন্ত্রী ড. কামালের হোসেনের টার্গেট সম্ভবত ক্ষমতায় যাওয়া নয়, তার টার্গেট শেখ হাসিনা : ওবায়দুল কাদের বিএনপির নেতৃত্বাধীন ভেঙে গেল ২০ দলীয় জোট, বেরিয়ে গেল ন্যাপ ও এনডিপি জঙ্গি আস্তানা : শেখেরচরে জঙ্গি আস্তানায় অভিযান, গুলির শব্দ

জম্মু-কাশ্মির সীমান্তে

পাকিস্তানি সেনাদের গুলিতে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী ২ জওয়ান নিহত


ডেস্ক রিপোর্ট

আপডেট সময়: ৩ জুন ২০১৮ ৪:১৩ পিএম:
পাকিস্তানি সেনাদের গুলিতে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী ২ জওয়ান নিহত

জম্মু-কাশ্মির সীমান্তে পাকিস্তানি সেনাদের গুলিতে এক কর্মকর্তাসহ ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফের দুই সদস্য নিহত ও তিন বেসামরিক ব্যক্তি আহত হয়েছেন। গতকাল (শনিবার) দিবাগত রাত সোয়া একটা নাগাদ আখনূর সেক্টরে ভারত ও পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর মধ্যে গুলিবিনিময়ের সময় সহকারী উপ-পরিদর্শক এস এন যাদব এবং কনস্টেবল বি কে পাণ্ডে নিহত হয়েছেন।

ওই ঘটনায় সুলক্ষণা দেবী (২৫), বংশীলাল (৪০) এবং বলবিন্দর সিং (২২) নামে বেসামরিক মানুষজন আহত হলে তাদেরকে স্থানীয় স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছে।

গণমাধ্যমে প্রকাশ, পাকিস্তানি সেনারা যুদ্ধবিরতি ভেঙে গুলিবর্ষণ করলে ওই হতাহতের ঘটনা ঘটেছে। আজ (রোববার) সকালে পাকিস্তানি রেঞ্জার্সরা আখনূর সেক্টরে গুলিবর্ষণসহ মর্টার নিক্ষেপ করছে। ভারতীয় সেনাবাহিনীও পাল্টা গুলিবর্ষণ করে জবাব দিচ্ছে।


পাকিস্তানের পক্ষ থেকে একনাগাড়ে মর্টার হামলার ফলে সীমান্তবর্তী এলাকা থেকে মানুষজনকে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এর পাশাপাশি সীমান্তের অরনিয়া ও আর এস পুরা সেক্টর এলাকার স্থানীয় বাসিন্দাদের সতর্ক করে দেয়া হয়েছে।

গত ২৯ মে পাকিস্তানের ‘সামরিক অপারেশন মহাপরিচালক’ (ডিজিএমও)-এর উদ্যোগে ভারত ও পাকিস্তানের ‘সামরিক অপারেশন মহাপরিচালক’ (ডিজিএমও) পর্যায়ের সংলাপে জম্মু-কাশ্মিরে সীমান্তসংঘর্ষ বন্ধ করতে ২০০৩ সালের সংঘর্ষ বিরতি চুক্তি সম্পূর্ণভাবে মেনে চলার সিদ্ধান্ত হয়েছিল। বিশেষ হটলাইনে দু’দেশের সামরিক বাহিনীর কমান্ডাররা জম্মু-কাশ্মিরের নিয়ন্ত্রণরেখা ও আন্তর্জাতিক সীমান্তের চলমান পরিস্থিতি পর্যালোচনা করেছিলেন।

যুদ্ধবিরতি মেনে চলার ওই সিদ্ধান্তকে আমেরিকা ও চীনের পক্ষ থেকে সেসময় স্বাগত জানানো হয়েছিল। কিন্তু এরপরেই পাক বাহিনী যুদ্ধবিরতি ভাঙায় দু’দেশের সেনাবাহিনীর মধ্যে গুলিবিনিময়ে হতাহতের ঘটনা ঘটল।


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top