Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, শনিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৮ , সময়- ৭:৫২ অপরাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
ভাসানীর আদর্শকে ধারণ করে দেশপ্রেম ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ হওয়ার আহ্বান  তরুণ ভোটারদের প্রাধান্য দিয়ে প্রণয়ন করা হচ্ছে আ'লীগের ইশতেহার  মওলানা ভাসানীর ৪২তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ  বিশ্ব ইজতেমা স্থগিত করা হয়নি  দাবানলে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৭৪, নিখোঁজ সহস্রাধিক রাজনৈতিক দলগুলোর রেকর্ড পরিমান মনোনয়নপত্র বিক্রি ঐক্যফ্রন্ট সংখ্যাগরিষ্ট আসন পেলে কে হবেন প্রধানমন্ত্রী ?  আ’লীগ নেতা রেজনু ও ছাত্রদল নেতা জিলানির ফোনালাপ ফাঁস প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের ইসিকে সহযোগিতার নির্দেশনা | প্রজন্মকণ্ঠ আওয়ামী লীগের দুপক্ষের সংঘর্ষ ও গোলাগুলিতে চারজন নিহত | প্রজন্মকণ্ঠ

ঈদের আগে বেতন-বোনাস নিয়ে শ্রমিকদের মধ্যে অসন্তোষের আশঙ্কা প্রকাশ


নিজস্ব প্রতিবেদক, প্রজন্মকণ্ঠ

আপডেট সময়: ৩ জুন ২০১৮ ৪:২৪ পিএম:
ঈদের আগে বেতন-বোনাস নিয়ে শ্রমিকদের মধ্যে অসন্তোষের আশঙ্কা প্রকাশ

পোশাক কারখানায় ঈদের আগে বেতন-বোনাস নিয়ে শ্রমিকদের মধ্যে অসন্তোষ দেখা দিতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী, কলকারখানা পরিদর্শন অধিদপ্তর এবং কয়েকটি শ্রমিক সংগঠন।

এমন আশঙ্কার পর গোয়েন্দা সংস্থাগুলো আগেভাগেই এসব কারখানার তালিকা করে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়েছে। পাশাপাশি কলকারখানা পরিদর্শন অধিদপ্তরও আলাদা তালিকা পাঠিয়েছে তৈরি পোশাক কারখানা মালিকদের সংগঠন-বিজিএমইএ এবং সংশ্লিষ্ট সংস্থাগুলোর কাছে।

শ্রমিক সংগঠনগুলো এরই মধ্যে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে বেতন ও বোনাস দেয়ার অনুরোধ করেছে মালিকদের কাছে । তবে বিজিএমইএ বলছে, এই ধরনের কোনো আশঙ্কাই নাই তাদের। নিয়মমাফিক নির্দিষ্ট সময়ে শ্রমিকদের বেতন-বোনাস দেয়া হবে। কোনো মালিক না দিলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। তবে যেহেতু এটি অনেক বড় একটা খাত, সেক্ষেত্রে ২/১টি কারখানায় সমস্যা হতে পারে বলে মনে করে সংগঠনটি।

এই বিষয়ে জানতে চাইলে গার্মেন্টস শ্রমিক ঐক্য ফোরামের সভাপতি মোশরেফা মিশু চ্যানেল আই অনলাইনকে বলেন, আমরা মূল বেতনের সমান বোনাস দেয়ার দাবি জানিয়ে আসছি। কিন্তু মালিকেরা তা না দিয়ে গড়ে ৫শ বা ১ হাজার টাকা হারে বোনাস দেয়।

প্রতি বছর ঈদের আগে শ্রম মন্ত্রণালয় মালিকদের সাথে বসে বেতন- বোনাস পরিশোধ করার জন্য দায়সারা গোছের একটা নির্দেশ দিয়ে থাকে এমন অভিযোগ করে এই শ্রমিক নেত্রী বলেন, আসলে কত টাকা বোনাস দেয়া হয়েছে, কত তারিখে দেয়া হয়েছে, কতগুলো কারখানা ঠিকমত বেতন-বোনাস দিয়েছে; এসবের কোনো তদারকি করে না শ্রম মন্ত্রণালয়।

শ্রমিকদের দিয়ে হয়তো ১৫ জুন পর্যন্ত কাজ করানো হবে এমন আশঙ্কা প্রকাশ করে তিনি বলেন, আমরা ২৫ রোজা থেকে ছুটি দেয়ার অনুরোধ করেছি। কারণ এক সাথে সবাইকে ছুটি দেয়া হলে উত্তরবঙ্গের শ্রমিকদের বাড়ি ফেরা কষ্টকর হয়। তাই ধাপে ধাপে ছুটি দিলে ভাল হতো।

তবে বেতন-ভাতা নিয়ে কোনো সমস্যা হবে না বলে মনে করেন বিজিএমইএর সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান। বিজিএমইএ সভাপতি বলেন, সবাই নির্দিষ্ট তারিখে বেতন দেবে। কেউ না দিলে তার বিরুদ্ধে অবশ্যই ব্যবস্থা নেয়া হবে।

নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা গেছে, বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হতে পারে এমন কারখানাগুলো চিহ্নিত করে সম্প্রতি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে প্রতিবেদন দিয়েছে একটি গোয়েন্দা সংস্থা। এতে তৈরি পোশাক কারখানা অধ্যুষিত এলাকা বলে খ্যাত ঢাকার আশুলিয়া ও টঙ্গীতে কয়েকটি কারখানায় বেতন-বোনাসের দাবিতে শ্রমিকরা আন্দোলন সংগ্রাম নামতে পারে বলে আশঙ্কা করা হয়।


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top