Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ জানুয়ারী ২০১৯ , সময়- ৪:৩২ অপরাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
দ্বিতীয় স্যাটেলাইট ও দ্বিতীয় যমুনা সেতুর পরিকল্পনা করছি ৩৭ এজেন্সিকে শাস্তি, মামলার নির্দেশ আইসিসি নতুন সিইও হিসেবে নির্বাচিত মানু সোহনি সরকারের সঙ্গে অব্যাহতভাবে কাজ করবে ইউরোপীয় ইউনিয়ন সরকারের অধীনে আর কোনো নির্বাচনে যাবে না বিএনপি ব্লগার হত্যার তদন্তে অগ্রগতি নেই অনিবার্য কারণবশত ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন স্থগিত ‘বিজয় উৎসব’ উপলক্ষে ডিএমপি’র ট্রাফিক নির্দেশনা বর্তমানে দেশে পর্যাপ্ত খাদ্য মজুদ রয়েছে : খাদ্যমন্ত্রী হঠাৎ করেই আলোচনায় চিত্রনায়িকা মৌসুমী

আততায়ীদের হাতে খুন মহিলা সাংবাদিক । প্রজন্মকণ্ঠ


অনলাইন রিপোর্ট

আপডেট সময়: ৩১ আগস্ট ২০১৮ ৩:০০ এএম:
আততায়ীদের হাতে খুন মহিলা সাংবাদিক  । প্রজন্মকণ্ঠ

৩২ বছরের সাংবাদিক সুবর্ণা নদী আর নেই ! মঙ্গলবার আততায়ীদের হাতে খুন হন তিনি। এই মহিলা সাংবাদিককে কুপিয়ে খুন করা হয়েছে বলেই জানিয়েছেন পাবনা জেলার সাংবাদিক সংগঠনের সম্পাদক কাজি বাবলা।

বিডি নিউজে প্রকাশিত খবর অনুযায়ী গতকাল সুবর্ণার বাড়িতেই তাঁকে খুন করা হয়েছে। পাবনার অ্যাডিশনাল সুপারিনটেনডেন্ট ইবনে মির্জা জানিয়েছেন, মঙ্গলবার রাত ১০.৪৫ নাগাদ সাংবাদিকের বাড়িতে আসেন ৯-১০ জন আততায়ী। তারা সুবর্ণার বাড়ির বেল বাজায় এবং দরজা খুলতেই সুবর্ণাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে। অচতৈন্য অবস্থায় সুবর্ণা-কে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিত্সকরা তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

সাংবাদিক সুবর্ণা পাবনা জেলার সাংবাদিক মহলে বেশ পরিচিত নাম। বেসরকারি সংবাদমাধ্যম আনন্দ টিভি এবং বাংলা দৈনিক জাগ্রত-র প্রতিনিধি ছিলেন তিনি। স্বামী রাজীবের সঙ্গে তাঁর বিচ্ছেদের মামলা চলছিল বলেও জানা যাচ্ছে। সুবর্নার ৯ বছরের একটি মেয়েও আছে।

প্রসঙ্গত, কী কারণে তাঁকে খুন করা হল, সে বিষয়ে তদন্ত শুরু করেছে পুলিস। তদন্তকারীরা জানতে পেরেছে খুনের দিন ১০ থেকে ১২ জন মোটর বাইকে চেপে সুবর্ণার বাড়ি এসেছিল। রাত ১০টা থেকে ১২টা-র মধ্যেই খুনের ঘটনাটি ঘটেছে বলে অনুমান করছেন তাঁরা। একই সঙ্গে পারিবারিক হিংসার বিষয়টিও উড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে না।

উল্লেখ্য, সুবর্ণার খুনের সঙ্গে অনেকেই মিল খুঁজে পাচ্ছেন গৌরি লঙ্কেশ হত্যাকান্ডের। বামপন্থী মনোভাবাপন্ন সাংবাদিক গৌরি লঙ্কেশকেও ঠিক একইভাবে খুন করা হয়েছিল। আততীয়রা মোটর বাইকে চেপে আসে এবং খুব কাছ থেকে তাঁকে গুলি করে। ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারান গৌরি লঙ্কেশ।

সেই ঘটনায় তদন্তে নেমে পুলিস জানতে পেরেছে অতীতে যে পিস্তল দিয়ে খুন করা হয়েছিল অধ্যাপক এম এম কালবুর্গিকে সেই একই পিস্তল ব্যাবহার হয়েছে গৌরি লঙ্কেশ হত্যাকান্ডেও। ওয়াকিবহাল মহলের একাংশ এই খুনের পিছনে রাজনৈতিক অভিসন্ধির বিষয়টিকেই সামনে নিয়ে এসেছে। তবে সুবর্ণার খুনের ক্ষেত্রেও তেমনটাই ঘটেছে কি না সে বিষয়ে একনও স্পষ্ট করে কিছু বলা যাচ্ছে না।  


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top