Projonmo Kantho logo
About Us | Contuct Us | Privacy Policy
ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৮ , সময়- ৪:৪৮ অপরাহ্ন
Total Visitor: Projonmo Kantho Media Ltd.
শিরোনাম
জঙ্গি আস্তানা : নরসিংদীর শেখেরচর ও মাধবদীতে দুটি বাড়ি ঘিরে রেখেছে পুলিশ  ওয়েজবোর্ডের আওতায় আসছে অনলাইন নিউজপোর্টাল রামকৃষ্ণ মিশনে দুর্গা আরাধনা দেখলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তারেক জিয়াকে বিএনপি প্রধানের দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেবার জন্য অনুরোধ করেছে আন্তর্জাতিক মহল নিজস্ব প্রস্তাবনা উপস্থাপন করতে না দেয়ায় অপমানিত বোধ করেছি : মাহবুব তালুকদার  ময়মনসিংহ পৌরসভাকে সিটি কর্পোরেশন ঘোষণা, সর্বস্তরে আনন্দের বন্যা গ্রেনেড হামলার মামলার রায়ে আমরা সন্তুষ্ট কিন্তু কিছু আপত্তি আছে : শাহরিয়ার আলম ড. কামাল বিএনপিতে যোগ দিয়েছেন, আলহামদুলিল্লাহ : খালেদা জিয়া জাফরুল্লাহর বিরুদ্ধে সেনাকর্মকর্তার থানায় সাধারণ ডায়েরি, তদন্তে ডিবি কেন কমিশন সভা বর্জন করেছেন কমিশনার মাহবুব তালুকদার

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন-১৮

টাঙ্গাইল-৮ (বাসাইল-সখীপুর) আসনে মনোনয়ন প্রত্যাশীদের ব্যাপক দৌড়-ঝাপ শুরু


প্রজন্মকণ্ঠ অনলাইন রিপোর্ট

আপডেট সময়: ৫ অক্টোবর ২০১৮ ১:১৯ পিএম:
টাঙ্গাইল-৮ (বাসাইল-সখীপুর) আসনে মনোনয়ন প্রত্যাশীদের ব্যাপক দৌড়-ঝাপ শুরু

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে ঘিরে টাঙ্গাইল-৮ (বাসাইল-সখীপুর) আসনে মনোনয়ন প্রত্যাশীদের ব্যাপক দৌড়-ঝাপ শুরু হয়েছে। তৃণমুল নেতাদের সমর্থন পেতে প্রার্থীরা ইতোমধ্যে নানা তৎপরতা চালাচ্ছেন।

এ আসনে দেশের প্রধান দল আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও জাতীয় পার্টি ছাড়াও এক বড় শক্তি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকীর কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ। বিএনপি আগামী নির্বাচনে অংশ নিলে আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও কাদের সিদ্দিকীর নির্বাচনী ভোটযুদ্ধ যে জমবে এ কথা আগে থেকেই বলে দেয়া যায়।

স্বাধীনতার পর প্রথম জাতীয় সংসদ নির্বাচন থেকে শুরু করে দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ, জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি, জাতীয় পার্টি ও কৃষক শ্রমিক জনতালীগের প্রাথীরা বিজয়ী হয়ে জাতীয় সংসদের প্রতিনিধিত্ব করেছেন।

বর্তমানে এ আসনের বাসাইলে ১ লক্ষ ৩৩ হাজার ৪শ ৯৬ ও সখীপুরে ২ লক্ষ ১২ হাজার ৮শ ২২ জনসহ দু উপজেলরা মিলে এ আসনের বর্তমান ভোটার ৩ লক্ষ ৪৬ হাজার ৩শ ২৮ জন।

এর আগে ১৯৭৩ সনে প্রথম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগের প্রার্থী অধ্যক্ষ হুমায়ুন খালিদ ১৯৭৯ সনে দ্বিতীয় জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী মুর্শেদ আলী খান পন্নী, ১৯৮৬ সনের তৃতীয় জাতীয় সংষদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগের শওকত মোমেন শাহজাহান, ১৯৮৮ সনের চতুর্থ জাতীয় সংষদ নির্বাচনে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জাতীয় প্রার্টির মোর্শেদ আলী খান পন্নী, ১৯৯১ ও ১৯৯৬ সনের পঞ্চম ও ষষ্ঠ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপির হুমাষ্ঠুন খান পন্নি, ১৯৯৬ সনের সপ্তম জাতীয় সংষদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগ থেকে বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী বীর উত্তম, ১৯৯৯ সনের উপনির্বাচনে আওয়ামীলীগের শওকত মোমেন শাহজাহান, ২০০১ সনের অষ্টম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কৃশক শ্রমিক জনতালীগ থেকে বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী বির উত্তম, ২০০৬ ও ২০১৪ সনের নবম ও দশম জাতীয় সংষদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগের শওকত মোমেন শাহজাহান সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। শওকত মোমেন শাহজাহানের মৃত্যুর পর এ আসনের উপনির্বাচনে তারই ছেলে অনুপম শাহজাজান নির্বাচিত হন।

নির্বাচন ঘিরে সব দলের সম্ভাব্য প্রার্থীরা গণসংযোগ করছেন বেশ আগে থেকে। বড় দুই দলের মনোনয়ন প্রত্যাশীরা তৃণমূল নেতাদের সঙ্গে কুশল বিনিময়, নির্বাচনী এলাকায় পোস্টার ও লিফলেট সেঁটে জনগণের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করছেন। আর তৃণমূল নেতাদের সমর্থন ও কেন্দ্রের সবুজ সংকেত পেতে লবিং চালাচ্ছেন একাধিক নেতা।

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টি ও কৃষক শ্রমিক জনতা লীগে শক্তিশালী প্রার্থী থাকলেও দলীয় মনোনয়নের জন্য ক্ষমতাসীন দলটিতেই দৌড়ঝাঁপ বেশি। এই দলে আটজন মনোনয়ন প্রত্যাশী মাঠে নেমেছেন সংসদ নির্বাচনে প্রার্থী হবেন বলে। তাদের মনোনয়ন দৌড়ে কেহ কারে নাহি ছাড়বে। ফলে একক প্রার্থী নির্বাচনে বেগ পেতে হবে আওয়ামী লীগকে। তাই এই মুহূর্তে আওয়ামী লীগের প্রা র্থী হিসেবে কারো প্রায় নিশ্চিত সম্ভাবনা আঁচ করা কঠিন। কিন্তু বিএনপি, কৃষক শ্রমিক জনতালীগ ও জাতীয় পার্টির প্রার্থী বাছাইয়ে তেমন কঠিন নয়।

টাঙ্গাইল-৮ আসনের বর্তমান এমপি অনুপম শাহজাহান জয় এবারও মনোনয়ন প্রত্যাশা করছেন। তার পক্ষে নেতাকর্মীরা নিয়মিত দলীয় কর্মসূচি ছাড়াও অন্য নেতাকর্মীদের সঙ্গে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রাখছেন। আওয়ামী লীগে অন্য মনোনয়ন-প্রত্যাশীদের মধ্যে রয়েছেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট জোয়াহেরুল ইসলাম (জোয়াহের), সখীপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান শওকত সিকদার, বাংলাদেশ তাঁত বোর্ডের সাবেক চেয়ারম্যান ও সাবেক অতিরিক্ত সচিব ইঞ্জিনিয়ার এ কে এম আসাদুল হক তালুকদার, ঢাকা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনিস্টিটিউশনের ভাইস প্রেসিডেন্ট ইঞ্জিনিয়ার আতাউল মাহমুদ, সখীপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও বোয়ালী কলেজের অধ্যক্ষ সাঈদ আজাদ, আওয়ামী লীগ নেতা সরকার মোহাম্মদ আরিফুজ্জামান ফারুক। তারা সবাই নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার জন্য নেতাকর্মীদের সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করে চলছেন।

বিএনপির প্রার্থীদের মধ্যে অনেকটা এগিয়ে আছেন কেন্দ্রীয় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট আহমেদ আজম খান। কেন্দ্রের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ যোগোযোগ আর নানা মাধ্যমে উপস্থিতির কারণে দ্রæতই পরিচিত মুখ হয়ে উঠেছেন তিনি। তবে একেবারে বিনা যুদ্ধে মনোনয়ন পেয়ে যাবেন তা নয়। তাকে লড়তে হবে সখীপুর উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি শেখ মোহাম্মদ হাবিব ও কেন্দ্রীয় বিএনপির সদস্য ওবায়দুল হক নাসিরের সঙ্গে। নির্বাচনে অংশ নেওয়ার জন্য মনোনয়ন পেতে মাঠে আছেন বাসাইল উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কাজী শহীদুল ইসলামও।

আওয়ামী লীগ-বিএনপির তুলনায় অতি ছোট দল হলেও কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি কাদের সিদ্দিকী অন্য আর সবার চেয়ে বেশি পরিচিত মুখ। এখানকার সাবেক সংসদ সদস্য তিনি। নিজের বিপুল পরিচিতি নিয়ে বসে নেই মুক্তিযুদ্ধে বঙ্গবীর খেতাব পাওয়া এই নেতা। নির্বাচনী প্রচারণা চালাচ্ছেন অন্যদের সমানতালে।

এ ছাড়া জাতীয় পার্টি থেকে মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম মহাসচিব আশরাফ সিদ্দিকী, কেন্দ্রীয় কমিটির নির্বাহী সদস্য এনাম জয়নাল আবেদীন ও রেজাউল করিম।

 


আপনার মন্তব্য লিখুন...

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ন বেআইনি
Top